২০১৮-১৯ বাজেট পেশে “অর্থমন্ত্রী পেনশনের টাকার তথ্য আসবে মোবাইলে “

0
43

ঢাকা: ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট ঘোষণা শুরু করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। বৃহস্পতিবার (৭ জুন) বেলা সাড়ে ১২টায় বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন তিনি।

এবারের বাজেটের আকার ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে মোট রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা। আগামী অর্থবছরের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে ১ লাখ ২৫ হাজার ২৯০ কোটি টাকা বরাদ্দের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বাজেটে ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকার মূল এডিপিসহ মোট উন্নয়ন খরচ ধরা হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা। বাকি ২ লাখ ৮৭ হাজার ১৩১ কোটি যাবে বেতন ভাতা সুদ পরিশোধসহ অন্যান্য অনুন্নয়ন খাতে। এছাড়া এবারের বাজেটে জনগণের ওপর কোনো বাড়তি করারোপ করা হবে না বলে ইতোমধ্যে অর্থমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন।

অবসরকালে সরকারি কর্মচারীদের পেনশনের টাকা পেতে হয়রানি কমানোর লক্ষ্যে বেশি কিছু নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পেনশন ব্যবস্থাপনা, পেনশন প্রদান প্রক্রিয়া ও পেনশনের আওতার ক্ষেত্রে এসব গুণগত পরিবর্তন আনা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত তার বাজেট বক্তৃতায় বলেন, পেনশনারদের হয়রানি লাঘবের জন্য পেনশন প্রদান প্রক্রিয়াও সহজ করা হচ্ছে। ইএফটি’র মাধ্যমে সরাসরি পেনশনারের পছন্দ অনুযায়ী তার হিসাবে পেনশন প্রদানের কার্যক্রম পাইলট আকারে চালু করা হয়েছে, যার পরিধি শিগগিরই সকল মন্ত্রণালয়/বিভাগে বিস্তৃত করা হবে। এর ফলে পেনশনারদের নিজ নিজ পেনশন উত্তোলনের জন্য আর হিসাবরক্ষণ কার্যালয়ে বা ব্যাংকে যেতে হবে না।

মন্ত্রী বলেন, প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট তারিখে পেনশনারের পছন্দ অনুযায়ী তার ব্যাংক হিসাবে সরাসরি পেনশনের অর্থ স্থানান্তর করা হবে এবং মোবাইলে একটি ক্ষুদে বার্তার (sms) মাধ্যমে এ তথ্য পেনশনারকে জানিয়ে দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, সরকারের পেনশন বাবদ বাজেট ব্যবস্থাপনায়ও পরিবর্তন এসেছে। পূর্বে মন্ত্রণালয়/বিভাগসমূহ বিক্ষিপ্তভাবে পেনশন বাবদ বরাদ্দ সংরক্ষণ করতো। বর্তমানে সরকারের সকল মন্ত্রণালয়/বিভাগের পেনশন বাবদ বরাদ্দ অর্থ বিভাগের অনুকূলে রাখা হচ্ছে, যা এ তহবিল ব্যবস্থাপনার দক্ষতা বৃদ্ধি করেছে। সরকারি কর্মচারীদের পেনশন ও ভবিষ্য তহবিল ব্যবস্থাপনার জন্য একটি পৃথক পেনশন অফিস স্থাপন করা হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ অটোমেশনের আওতায় কাজ করবে। ফলে, পেনশনারদের ভোগান্তি স্থায়ীভাবে দূর হবে।

বাংলাদেশের ৪৬ বছরের অর্জনের মাথায় দেশকে আরো একধাপ এগিয়ে নিতে ‘সমৃদ্ধ আগামী: অগ্রযাত্রার বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য নিয়ে এই বাজেট পেশ হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী দুইভাগে এ বাজেট উপস্থাপন করছেন। প্রথমে তিনি সম্পূরক বাজেট ও পরে মূল বাজেট উপস্থাপন করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here