হোয়াইট হাউসে সিনেট বৈঠক ডেকেছেন ট্রাম্প

0
152
untitled-31_288044আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধাবস্থায় করণীয় নিয়ে আলোচনার জন্য সিনেটরদের হোয়াইট হাউসে বৈঠকে ডেকেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এভাবে পুরো সিনেটকে ডেকে কোনো বিষয়ে আলোচনা করার রেকর্ড দেশটির ইতিহাসে বিরল। আজ বুধবার ওই বৈঠকে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগসহ অন্যান্য দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত থাকবেন।

তবে সবকিছুকে থোড়াই কেয়ার করে উত্তর কোরিয়া বলেছে, তারা ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা বন্ধ করবে না। দেশটি গতকাল মঙ্গলবার সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া চালিয়েছে। অন্যদিকে কোরীয় উপদ্বীপের পশ্চিম সাগরে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে গতকাল যৌথ নৌ-মহড়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এমন পরিস্থিতিতে শুক্রবার বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। খবর বিবিসি, ডেইলি মেইল, এএফপি ও কোরিয়া টাইমসের।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি শন স্পাইসার জানান, বুধবার (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায়) হোয়াইট হাউসে সিনেটরদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। বৈঠকে ১০০ সিনেটরকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সিনেটরদের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার ক্রমবর্ধমান হুমকি এবং এ ইস্যুতে করণীয় নির্ধারণে আলোচনা হবে। তিনি জানান, বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস, ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের পরিচালক ডেন কোস্টস এবং দেশটির জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ চেয়ারম্যান জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড। রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে নিয়মিত আলোচনা করে থাকে হোয়াইট হাউস। কংগ্রেসম্যানদের মতামত নেন প্রেসিডেন্ট। তবে কোনো ইস্যুতে আলোচনা ও মতামতের জন্য পুরো সিনেটকে ডাকা এটাই প্রথম।

বড় সামরিক মহড়া উত্তর কোরিয়ার :সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গতকাল ‘সবচেয়ে বড়’ সামরিক মহড়া করেছে উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় ওনসান উপকূলীয় এলাকায় সামরিক মহড়া চালাচ্ছে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকায় আর্টিলারি বাহিনীর বিপুল সদস্য ও সমরাস্ত্র মোতায়েন করেছে পিয়ংইয়ং। সেখান থেকে মুহুর্মুহু কামান দাগা হচ্ছে।

একই দিনে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়াও। সঙ্গে যোগ দিয়েছে জাপান ও যুক্তরাষ্ট্র। সিউলের সামরিক কর্মকর্তারা জানান, উত্তর কোরীয় সেনাবাহিনীর গতিবিধি নজরে রাখছেন তারা। একই সঙ্গে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সেনাবাহিনী প্রস্তুত রয়েছে।

টোকিওতে ত্রিদেশীয় বৈঠক :টোকিওতে গতকাল মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছেন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা। বৈঠক সম্পর্কে দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কিম হুং কিউন বলেন, উত্তর কোরিয়া যদি উস্কানিমূলক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাতেই থাকে, তবে দেশটির বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা করেন তারা। তিনি জানান, তিন পক্ষই একমত যে উত্তর কোরিয়াকে উস্কানি বন্ধ করতেই হবে।

বৈঠকে বসছে নিরাপত্তা পরিষদ :এদিকে ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সোমবার নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্য দেশের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বৈঠক করে ট্রাম্প বলেন, উত্তর কোরিয়া বিশ্বের জন্য বড় হুমকি এবং এটা এমন সমস্যা, যা চূড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি করতে হবে।

তার এ আহ্বানের পর শুক্রবার উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here