হায়দ্রাবাদকে ফাইনালে তুললেন ডেভিড ওয়ার্নার

0
239

55030স্পোর্টস ডেস্ক: আবারও নিজের জাত চেনালেন ডেভিড ওয়ার্নার। শুক্রবার তার ব্যাটিং নৈপুণ্যেই ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ফাইনালে উঠে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। দ্বিতীয় কোয়ালিফাইং ম্যাচে গুজরাট লায়ন্সকে ৪ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় তারা।

প্রথমে ব্যাট করে এদিন ৭ উইকেটে ১৬২ রান সংগ্রহ করে গুজরাট লায়ন্স। জবাবে ডেভিড ওয়ার্নারের অপরাজিত ৯৩ রানের সৌজন্যে ৪ উইকেটের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে হায়দ্রাবাদ।

অথচ গুজরাটের ছুঁড়ে দেওয়া ১৬৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামলে শুরুটা ভালো হয়নি হায়দ্রাবাদের। কোন রান না করেই আউট হন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ান। হেনরিকস ১১ আর যুবরাজ সিংও ৮ রান করে সাজঘরে ফিরে গেলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে হায়দ্রাবাদ।

তবে একাই লড়াই চালিয়ে যান ডেভিড ওয়ার্নার। শেষ পর্যন্ত ৫৮ বলে ৯৩ রান করে দলকে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন তিনি।

গুজরাটের শিভিল কৌশিক এবং ডোয়াইন ব্রাভো ২টি করে উইকেট লাভ করেন। এছাড়া ডোয়াইন স্মিথ ১টি উইকেট পান।

এর আগে দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় টসে জিতে গুজরাট লায়ন্সকে প্রথমে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৯ রানেই মূল্যবান ২ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে গুজরাট। ব্যক্তিগত ৫ রানে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান একলব্য দ্বিবেদি। এরপর অধিনায়ক সুরেশ রায়নাকে (১) প্যাভিলিয়নের পথ দেখান মুস্তাফিজের পরিবর্তে একাদশে সুযোগ পাওয়া ট্রেন্ট বোল্ট।

তবে অ্যারন ফিঞ্চের অর্ধশতকের সৌজন্যে ৭ উইকেটে ১৬২ রান তুলে গুজরাট। গুজরাটের জার্সিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩২ রান করেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। এছাড়া দিনেশ কার্তিক ২৬ এবং ২০ রান করেন ডোয়াইন ব্র্যাভো। হায়দ্রাবাদের ভুবনেশ্বর কুমার ও বেন কাটিং ২টি করে উইকেট লাভ করেন। ট্রেন্ট বোল্ট আর বারিন্দার স্রান ১টি করে উইকেট পান।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে  সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের জার্সিতে এদিনই প্রথম খেলার সুযোগ পাননি মুস্তাফিজুর রহমান। মূলত হ্যামস্ট্রিং সমস্যার কারণেই এদিন একাদশ থেকে ছিটকে পড়েন তিনি। আইপিএল-অভিষেকেই আলো ছড়িয়েছেন ২০ বছরের এই তরুণ। ১৫ ম্যাচ খেলে প্রতিপক্ষের ১৬ উইকেট দখল করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here