সিরতের বন্দর আইএস দখলমুক্ত

0
255

160518080141_libya_sirte_640x360_ap_nocreditআন্তর্জাতিক ডেস্ক: লিবিয়ায় ইসলামিক স্টেটের জঙ্গীদের বিরুদ্ধে তীব্র লড়াইয়ের পর সিরতে শহরটির বন্দরের নিয়ন্ত্রণ দখল করেছে সেদেশের জাতীয় ঐক্যের সরকারের অনুগত বাহিনী।

ইরাক এবং সিরিয়ার বাইরে এই সিরতে শহরই হচ্ছে ইসলামিক স্টেটের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ ঘাঁটি। এখানে তাদের শক্তিশালী উপস্থিতি বেশ কিছুকাল ধরেই লিবিয়ার পশ্চিমা মিত্রদের উদ্বেগের কারণ ছিল। এই সিরতে শহরটির নিয়ন্ত্রণ দখলের জন্য লড়াই শুরু হয় গত মাসে।

একজন জেনারেল মুহাম্মদ আল-ঘুসরি বলেছেন, আইএসের উর্ধতন নেতারা দক্ষিণ দিকের মরুভূমিতে পালিয়ে গেছে, তবে শহরের ভেতরে আইএস যোদ্ধাদের অনেকেই ঘেরাও হয়ে আছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযান এখনো চলছে।

জাতিসংঘ সমর্থিত ঐক্য সরকারের অনুগত বাহিনীর বেশিরভাগ সদস্যই হচ্ছে পশ্চিমাঞ্চলীয় মিসরাটা শহর থেকে আসা মিলিশিয়ারা।

বিবিসির সংবাদদাতারা জানাচ্ছেন, সিরতে শহরের রাস্তায় রাস্তায়, বাড়িতে বাড়িতে যুদ্ধ চলছে। ইসলামিক স্টেটের অবস্থানগুলোর ওপর সরকারপন্থী বাহিনী ট্যাংক ও কামান থেকে গোলাবর্ষণ করছে, এর পাশাপাশি বিমান হামলাও চলছে।

গত রাতেই খবর পাওয়া যায় যে সিরতে শহরের বন্দর এলাকা থেকে জঙ্গীদের হটিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে শহরটি দখলের লড়াই এখনো চলছে।

সরকারি বাহিনী বলছে, তারা চোরাগোপ্তা বন্দুকধারী, ভূমি মাইন, এবং গাড়ি বোমা মোকাবিলা করে শহরটির কেন্দ্রস্থলে দিকে যাচ্ছে।

এক বছর আগে আইএস সিরতে দখল করে, এবং লিবিয়ায় একটি বড় শক্তি হয়ে উঠবার জন্য তাদের প্রয়াসের একটি প্রধান ঘাঁটিতে পরিণত করে এই শহরটিকে।

এই সিরতে শহরভূমধ্যসাগরীয় উপকুলের একেবারে কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত, এবং এর ঠিক অপর পারে হচ্ছে ইতালি। এখানে আইএসএর শক্ত নিয়ন্ত্রণ পশ্চিমা সরকারগুলোকে উদ্বিগ্ন করে তোলে।

সিরতে শহরে আইএসের পতন এই গোষ্ঠীর জন্য একটি বড় আঘাতের শামিল হবে, অন্যদিকে লিবিয়ার নতুন সরকারোর জন্য এর নিয়ন্ত্রণ হাতে পাওয়াটা হবে তাদের ক্রমবর্ধমান শক্তির প্রমাণ। খবর-বিবিসি বাংলা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here