সংসদে প্রধানমন্ত্রী, আগাম ব্যবস্থা নেয়ায় ‘মোরা’য় ক্ষয়ক্ষতি কম

0
71

pm_parliament_48453_1496223123ঢাকা: অস্ট্রিয়া থেকেই আগাম ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’য় ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সংসদে নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সদস্য মাহবুব উল আলম হানিফের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের খবর পেয়ে আমি অষ্ট্রিয়া বসেই আগাম ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছি। আমাদের ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে।

তিনি বলেন, ঝড়টি ঘুরে যাওয়া এবং ওই সময় সমুদ্রে ভাটা থাকার কারণে আমরা যে আশঙ্কা করেছিলাম সেই পরিমাণ ক্ষতি হয়নি। তবে বেশকিছু ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্গত এলাকার মানুষের পুনর্বাসনে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, জনগণের সেবার জন্যই আমরা রাজনীতি করি। শুধু সরকারি দলে থাকলেই নয়, বিরোধী দলে থাকতেও আমরা দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। ঘূর্ণিঝড় দুর্গত এলাকার মানুষের সহযোগিতায় সরকারিভাবে এবং দলীয়ভাবে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে নৌবাহিনীর দুটি জাহাজ ত্রাণ নিয়ে দুর্গত এলাকায় পৌঁছেছে। বিমান বাহিনীও প্রস্তুত রয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে যাদের ঘরবাড়ি নষ্ট হয়েছে তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তাদের ঘর-বাড়ি তৈরি করে দেয়া হবে।

স্বতন্ত্র সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আমাদের সাথী। দুর্যোগ মোকাবেলার সক্ষমতাও আমাদের রয়েছে এবং আমরা এই সক্ষমতার প্রমান রেখেছি।

হাওর ও উপকুলীয় এলাকায় বেরিবাঁধ নির্মাণ করা হবে উল্লেখ করে তিনি পানি উন্নয়ন মন্ত্রণালয়কে প্রকল্প বাস্তবায়নে আরও গতিশীল হওয়ার আহ্বান জানান।

সরকারি দলের সদস্য মো. আবদুল্লাহর এক তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত হাওরবাসীর দুঃখ-দুর্দশা লাঘবে আমি নিজেই দুইবার দুর্গত এলাকা পরিদর্শন করেছি। এছাড়া সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তি, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য, সচিব ও সিনিয়র সচিবসহ বিভিন্ন কর্মকর্তারা বন্যাকবলিত এলাকা নিয়মিত পরিদর্শন করছেন।

তিনি বলেন, পাহাড়ি ঢল ও আকষ্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হাওরবাসীর দুর্দশা লাঘবে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY