শ্বাসরুদ্ধকর শেষ বল রোমাঞ্চে এশিয়া কাপ ফাইনালে বাংলাদেশের হার

0
13

স্পোর্টস ডেস্ক: আরও একবার হাতের নাগালে এসেও এশিয়া কাপের শিরোপা ছুঁতে পারল না টাইগাররা। শুক্রবার রাতে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জয়ের আশা জাগিয়েও শ্বাসরুদ্ধকর শেষ বল রোমাঞ্চে তিন উইকেটে শক্তিশালী ভারতের কাছে হেরেছে মাশরাফি বাহিনী।

শেষ চার আসরের মধ্যে  তিনবার এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে বাংলাদেশের জেতা হলো না একবারও। শেষ বলে গিয়ে এশিয়া কাপ না জেতার যন্ত্রণায় পুড়তে হলো দুইবার।

টুর্নামেন্টের ফেবরিট গতবারের এশিয়া চ্যাম্পিয়ন ভারত সপ্তমবারের মতো শিরোপা তুলে নিয়েছে। তবে সহজ জয় পায়নি তারা।

মাত্র ২২৩ রানের টার্গেট ছুঁতে শেষ বল পর্যন্ত খেলতে হয়েছে, চ্যাম্পিয়নদের মতোই লড়াই করেছে টাইগাররা।

শুক্রবার দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে দলের সেরা দুই তারকা সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল ছাড়াই ফাইনাল খেলতে নামে এবং তুমুল লড়াই করে শেষ বল পর্যন্ত আশাটা জাগিয়ে রেখেছিল মাশরাফি মর্তুজার দলই।

শেষ দুই ওভারে দরকার মাত্র ৯ রান। হাতে ৪ উইকেট। ম্যাচ ভারতের দিকেই হেলে।

মোস্তাফিজ প্রথম বলেই ফেরালেন ভুবনেশ্বর কুমারকে। কিছুটা আশা ফের জেগে উঠল। শেষ ওভারে দরকার ৬ রান। বল করতে এলেন মাহমুদউল্লাহ। প্রথম ৫ বল থেকে এল ৫ রান। শেষ বলে দরকার ১। কোনোরকম লেগ বাই বানিয়ে ভারতকে চ্যাম্পিয়ন করেন কেদার যাদব।

এশিয়া কাপের শুরু থেকেই টপ অর্ডারের— ওপেনিংয়ের ব্যর্থতা থাকলেও এদিন চমক দেখিয়ে ১২০ রানের দারুণ এক উদ্বোধনী উপহার দেন লিটন কুমার দাস ও মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু এরপর ১০২ রান করতে হারায় দলের সব উইকেট।  ফলে মাত্র ২২২ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

এর মধ্যে ১২১ রানই লিটনের। মিরাজ করেছনে ৩২, সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে এসেছে ৩৩। বাকি আটজনের ইনিংস টেলিফোন ডিজিট। সব মিলিয়ে তারা করেছেন মাত্র ২৯।

থার্ড আম্পায়ারের বিতর্কিত এক সিদ্ধান্তে লিটন স্ট্যাম্পড আউট হন। তার ওই বিতর্কিত আউট না হলে বাংলাদেশের সংগ্রহে আরও কিছু রান বেশি হতে পারত।

অপরদিকে প্রায় প্রতি ম্যাচেই টপ অর্ডার দারুণ খেলছিল ভারতের। এদিন টপ অর্ডারকে ফেরাতে পারলেও শেষদিকের ব্যাটসম্যানরাই ভোগাল টাইগারদের। আট নম্বর ব্যাটসম্যান ভুবনেশ্বরও খেলেছেন ২১ রানের ইনিংস। ফলে আরও একটি হারে শিরোপা স্বপ্নভঙ্গ হয় টাইগারদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

বাংলাদেশ : ২২২ (৪৮.৩ ওভার) (লিটন ১২১, মিরাজ ৩২, ইমরুল ২, মুশফিক ৫, মিঠুন ২, মাহমুদউল্লাহ ৪, সৌম্য ৩৩, মাশরাফি ৭, নাজমুল ৭, মোস্তাফিজ ২*, রুবেল ০; ভুবনেশ্বর ০/৩৩, বুমরাহ ১/৩৯, চাহাল ১/৩১, কুলদিপ ৩/৪৫, জাদেজা ০/৩১, কেদার ২/৪১)।

ভারত : ২২৩/৭ (৫০ ওভার) (রোহিত ৪৮, ধাওয়ান ১৫, রাইডু ২, কার্তিক ৩৭, ধোনি ৩৬, কেদার ২৩*, জাদেজা ২৩, ভুবনেশ্বর ২১, কুলদিপ ৫*; মিরাজ ০/২৭, মোস্তাফিজ ২/৩৮, অপু ১/৫৬, মাশরাফি ১/৩৫, রুবেল ২/২৬, মাহমুদউল্লাহ ১/৩৩)।

ফলাফল : ভারত ৩ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : লিটন দাস

ম্যান অব দ্য সিরিজ : শেখর ধাওয়ান