রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় বিশ্বে বাংলাদেশের সম্মান বেড়েছে

0
50

ঢাকা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ বলেছেন, মানবাধিকার রক্ষায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় বিশ্বে বাংলাদেশের সম্মান বেড়েছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি নির্ধারণ করেছিলেন ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে শত্রুতা নয়।’ কিন্তু রোহিঙ্গা ইস্যুটি অনেকের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক কিছুটা শীতল করেছে। বিশেষ করে মিয়ানমারের সঙ্গে।

বুধবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) আয়োজিত ‘বিশ্ব পরিস্থিতির পরিবর্তন: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গোটা বিশ্ব সাক্ষী ২০১৭ সালে কীভাবে নির্যাতিত হয়ে সাড়ে ছয় লাখ মানুষ মাত্র তিন মাসে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এখন দেশে মিয়ানমারের ১০ লাখ অধিবাসী রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। তার মধ্যে প্রতিবেশীর সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে অগ্রাধিকার দিয়েছে বাংলাদেশ। ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক এক অনন্য উচ্চতায় অবস্থান করছে। কিন্তু প্রতিবেশী মিয়ানমারের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুর কারণে কূটনৈতিক অবস্থা শীতল হয়েছে। নানা কূটনৈতিক চাপের পর ২৩ নভেম্বর মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদোতে দুই দেশের মন্ত্রীপর্যায়ের বেঠকে এ সংক্রান্ত ‘ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট সমঝোতা স্মারক সই হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আশা করি- রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সম্মত হয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে সম্পর্ক আগের অবস্থায় ফিরে আসবে। ২০১৭ সালকে জাতিসংঘ মহাসচিব শান্তির বছর ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসী আক্রমণ হয়েছে এ বছরেই।

তিনি বলেন, সৌদি আরব মুসলিম বিশ্বকে বরাবরের মতোই নেতৃত্ব দিয়েছে। জলবায়ু সংকটে কার্যকর ভূমিকা নিতে নেতৃত্ব দিয়েছে ফ্রান্স। বিশ্ব অব্যাহতভাবে বদল হচ্ছে। তাই নতুন সমুদ্রসীমানা, আঞ্চলিক সহযোগিতা ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশীর সঙ্গে সম্পর্ক, জাপান, চীন, ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়ন হবে বলে আশা প্রকাশ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বিআইআইএসএস’র চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

আরও বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হক, বিআইআইএসএস’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আব্দুর রহমান।

সেমিনারের ওয়ার্কিং সেশনে সভাপতিত্ব করেন সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ জমির।

এ সময় বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. তাসনিম সিদ্দিকী, পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলিকুজ্জমান আহমদ, পলিসি রির্সাস ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান মনসুর প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here