রায়ের পর ক্ষমতায় থাকার নৈতিকতা হারিয়েছে সরকার: ফখরুল

0
33

ঢাকা: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ঘোষণার পর সরকার ক্ষমতায় থাকার নৈতিক বৈধতা হারিয়েছে। অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসায় নৈতিকতার ধারেকাছেও নেই আওয়ামী লীগ।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় যুবদল আয়োজিত দোয়া মাহফিল পূর্ব আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা আগেই বলেছি সুপ্রিমকোর্ট যে রায় দিয়েছেন তা ইতিহাসের যুগান্তকারী রায়। বাংলাদের পরিস্থিতি অনুযায়ী এমন দিক নির্দেশনামূলক রায় আগে কখনো হয়েছে কিনা আমার জানা নেই। আজকে যখন সুপ্রিমকোর্ট বর্তমান সরকারের সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন তখন তাদের গাত্রদাহ শুরু হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, সুপ্রিমকোর্ট বুঝতে পেরেছেন যে, এখন তাদের দায়িত্ব নিতে হবে। দেশ আজ ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে। এই সংকট উত্তরণে অভিভাবক হিসেবে আজ তাদের দায়িত্ব নিতে হবে। এই সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে জনগণের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন হবে না।

ক্ষমতাসীনরা রাষ্ট্র চালাতে পারছে না দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, এয়ারপোর্টের মধ্যে তিনতলায় আগুন লাগে, সমস্ত বন্ধ করে দিতে হয়। হজযাত্রীরা যেতেও পারছেন না, একটার পর একটা সমস্যা তৈরি হয়ে যাচ্ছে, তারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য লন্ডনে গেছেন আওয়ামী লীগের এতো গাত্রদাহ কেন? দেশনেত্রী নড়াচড়া করলে দেশের জনগণ নড়েচড়ে ওঠে। তিনি যেখানে যান লাখ লাখ জনগণ তার কাছে যায়। দেশনেত্রী সমাবেশ করলে আওয়ামী লীগের প্রতিরোধের মুখেও  লাখো জনতার ঢল নামে। তাদের গাত্রদাহের কারণ হলো, ‘এতো অত্যাচার নির্যাতন করেছি, এতো মিথ্যা মামলা দিয়েছি তাদের কোনো ভাবেই ধমানো যাচ্ছে না’। লন্ডন যাওয়ার সময় বিমানবন্দরে নেত্রীকে বিদায় জানাতে জনগণের ঢল নেমেছিলো। এটাও তাদের কাছে ভালো লাগেনি।

যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করীম বাদরুর পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা সালাউদ্দিন টুকু বক্তব্য রাখেন।

দোয়া মাহফিলে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল ইসলাম নয়ন, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, মোস্তফা কামাল রিয়াদ এবং গোলাম মাওলা শাহিন উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here