রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির মাসব্যাপী আলোচনা সমাপ্ত

0
109

1নিউজ ডেস্ক: নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মাসব্যাপী আলোচনার সমাপ্তি টেনেছে বঙ্গভবন।

কাজী রকিবউদ্দিন আহমদের নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ আগামী ফেব্রুয়ারিতে শেষ হবে। সে কারণে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে এই আনুষ্ঠানিক আলোচনার উদ্যোগ নেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘মাসব্যাপী আলোচনায় রাজনৈতিক দলগুলোর দেয়া মতামত ও প্রস্তাবনা পর্যালোচনা করে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে পরবর্তী পদক্ষেপ নিবেন।’ তিনি বলেন, গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া আলোচনায় রাষ্ট্রপতি ৩১টি রাজনৈতিক দলের সাথে বৈঠক করেন।

মাসব্যাপী আলোচনায় রাজনৈতিক দলগুলো পৃথকভাবে প্রস্তাবনা তুলে ধরে এবং অধিকাংশই নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দেয়। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ১১ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সাথে বৈঠক করে। আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে ই-ভোটিং এবং নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দেয়।

রাষ্ট্রপতির সাথে আলোচনায় বিএনপি ‘সার্চ কমিটি’ ও নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে একগুচ্ছ প্রস্তাব তুলে ধরে। দলটি নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী করা এবং জনপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধনের প্রস্তাব দেয়। জাতীয় পার্টি (এরশাদ) পরবর্তী নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে পাঁচ-দফা প্রস্তাবনা তুলে ধরে এবং নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য একটি আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দেয়।

রাষ্ট্রপতির সাথে আলোচনায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো হচ্ছে- লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি), ওয়ার্কার্স পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ), ইসলামী ঐক্য জোট, জাতীয় পার্টি (মঞ্জু), বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি), বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল, ন্যাশনাল আওযামী পার্টি (ন্যাপ), বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ, গণফোরাম, গণতন্ত্রী পার্টি, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (আম্বিয়া), বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, জাকের পার্টি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, খেলাফত মজলিশ এবং জমিয়ত-ই-উলামা-ই- ইসলাম বাংলাদেশ।বাসস