রাখাইনে দোষীদের বিচারের দাবি নিক্কি হ্যালির

0
6

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্তের সঙ্গে জাতিসংঘের প্রতিবেদন সঙ্গতিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘে মার্কিন প্রতিনিধি নিক্কি হ্যালি। তিনি দোষীদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসারও দাবি জানিয়েছেন।

গত সোমবার জাতিসংঘের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের সেনাপ্রধান ও অন্য পাঁচ জেনারেলকে গণহত্যার দায়ে বিচার করা উচিত।

মঙ্গলবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে নিক্কি হ্যালি বলেন, সেখানে যা ঘটেছে, সেই কঠিন সত্য বিশ্ববাসী আর এড়িয়ে যেতে পারবে না।

তবে তিনি গণহত্যার পরিভাষাটি মুখে নেননি।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি যে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযানে গণহত্যার উদ্দেশ্য ছিল কিনা।

হ্যালি বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনে এক হাজারের বেশি রোহিঙ্গাকে এলোপাতাড়িভাবে নির্বাচন করে জরিপ চালানো হয়েছে।

জরিপের এক-পঞ্চমাংশ প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, তারা শতাধিক লোককে নিহত কিংবা আহত হতে দেখেছেন।

তিনি বলেন, জরিপের ৮২ শতাংশ প্রত্যক্ষদর্শী অন্তত একজনকে নিহত হতে দেখেছেন। আর তাদের অর্ধেকেরও বেশি লোক যৌন সহিংসতা ও ৪৫ শতাংশ ধর্ষণের ঘটনা দেখেছেন।

জাতিসংঘের প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে হ্যালি বলেন, তাতে একটি গ্রুপকে অধিকাংশ অপরাধের সঙ্গে জড়িত বলে শনাক্ত করেছে। সেটি হল মিয়ানমারের সামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনী।

তিনি বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের উচিত দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করা। পরে আমরা কী করছি বা করব বিশ্ববাসী তা পর্যবেক্ষণ করছেন।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার নুয়ার্ট বলেন, গণহত্যার উদ্দেশ্য একটি খুবই সুনির্দিষ্ট আইনি বিবরণ। কাজেই সেটি খুব সহজভাবে নির্ণয় করা সম্ভব না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here