যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র একাংশের সভা, শৃংখলা বজায় না রাখলে ব্যবস্থা

0
316

bnp0248112নিউইয়র্ক (ইউএনএ): যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিতে দলীয় শৃংখলা বজায় রাখার উপর গুরুত্বারেপ করে দলের একাংশের নেতারা অন্যথায় শৃংখলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের হুমকি দিয়েছেন। সভায় বক্তারা বলেন, দল করতে হলে, দলের নিয়ম-নীতি, শৃংখলা, চেইন অব কমান্ড মানতে হবে। তারা বলেন, দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আর সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশ ও পরামর্শে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি পরিচাতি হবে।

নিউইয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সিটির জ্যামাইকায় অনুষ্ঠিত দলের এক এক সভায় বক্তার এসব বলেন। গত ২১ জুলাই বৃহস্প্রতিবার রাতে স্থানীয় কুইন্স ভিলেজস্থ যুক্তরাষ্ট্র যুবদল নেতা ও সিটি যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শেখ হায়দার আলীর বাসায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপি’র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সস্পাদক ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফ সম্রাটের সভাপতিত্বে অনুঠিত সভায় দলের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি গিয়াস আহমেদ, সাবেক সভাপতি আলহাজ সোলায়মান ভূইয়া, সামসুল ইসলাম মজনু ও মনজুর আহমেদ চৌধুরী, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নিয়াজ আহমেদ জুয়েল, বিএনপি নেতা ডা. জাহিদ নেওয়ান শামীম, চিত্তরঞ্জন দত্ত, সাবেক ছাত্রনেতা মার্শাল মুরাদ, কেন্দ্রীয় যুবদলের সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এম এ বাতেন, দিনাজপুর জেলা ছাত্রদল, যুবদল ও বিএনপি’র সাবে নেতা শাহীন খান, তারেক রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন পরিষদের সবাপতি এবং মাহমুদুর রহমান ও শষিক রেহমান মুক্তি আন্দোলন কমিটির আহ্বায়ক পারভেজ সাজ্জাদ, নিউইয়র্ক সিটি যুবদলের সবাপতি বিলাল চৌধুরী, এডভোকেট কামরুজ্জামান বাবু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সভা পরিচালনা করেন যুবদল নেতা এএফ মিসবাহউজ্জামান।

সভায় নিউয়র্ক ষ্টেট বিএনপি’র কমিটি গঠন বিষয়ে তারেক রহমানের নির্দেশে ও পরামর্শ, যুুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেত ডা. মুজিব-জিল্লু-জসিম প্রমুখদের কর্মকান্ড ও সভা-সমাবেশ, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি শরাফত হোসেন বাবুর বহিস্কার ইউএস সিনেটরদের স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া বিবৃতি প্রদানের অভিযোগে দলীয় চেয়াপার্সনের বিশেষ উপদেষ্টার পদ থেকে ডা. মুজিবুর রহমান মজুমদার ও এফ সর্দার সাদীকে প্রত্যাহার, কেন্দ্রীয় নেতা মিলন কর্তৃক চাঁদাবাজীর অভিযোগ প্রসঙ্গ, কাউন্সিলের মাধ্যমে ষ্টেট কমিটি গঠন ও সদস্য পদ গ্রহনের ফি সহ কোন কোন নেতার দলীয় শৃংখলা বিরোধী কর্মকান্ড আলোচনায় স্থান পার। সভায় কোন কোন নেতার বক্তব্যকে কেন্দ্র করে উত্তেজনারও সৃষ্টি হয়।

এহসানুল হক মিলন দীর্ঘ বক্তব্যে রাখেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র কমিটি নেই। সংগঠনের সর্বশেষ কমিটির সভাপতি হিসেবে আব্দুল লতিফ স¤্রাট আর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জিল্লুর রহমান জিল্লুর অনেক দায়-দায়িত্ব রয়েছে। দলের নতুন কমিটি গঠনের দায় তাদের উপরই বর্তায়। সভায় উল্লেখযোগ্য দলীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে জাকির এইচ হাওলাদার, আব্দুস সবুর, সৈয়দা মাহমুদা শিরীন, ডা. তারেক, শেখ আনসার আলী, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি