যুক্তরাষ্ট্রে কঠোর হলো বিদেশি কর্মীদের ভিসা

0
106
imagesআন্তর্জাতিক ডেস্ক: উচ্চ দক্ষতাসম্পন্ন বিদেশি শ্রমিকদের ভিসা দেওয়ার প্রক্রিয়া কঠোর করলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত মঙ্গলবার নতুন এক নির্বাহী আদেশে এ কঠোরতা আরোপ করেন তিনি। দেশটির অস্থায়ী ভিসা ব্যবস্থায় পরিবর্তনের দিকনির্দেশনা দিয়ে তিনি ওই নির্বাহী আদেশ জারি করেন। ‘যুক্তরাষ্ট্রের পণ্য ক্রয় করুন ও যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োগ করুন’_ এই আদেশে দক্ষ শ্রমিকদের কাজে নিয়োগের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠানে বিদেশিদের পরিবর্তে নিজেদের নাগরিকদের অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। খবর বিবিসির।
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই আদেশ বাস্তবায়নে বিভিন্ন সংস্থাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বিদেশি কোনো ঠিকাদার বা কোম্পানি যেন সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ পেতে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে না পারে, তা কঠোরভাবে মেনে চলার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।
ট্রাম্প জানান, তার নির্বাচনী প্রচারে যে ‘যুক্তরাষ্ট্রই প্রথম’ নীতির কথা বলেছিলেন, তা বাস্তবায়নেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।
উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের কেনোশায় স্ন্যাপ অনলাইনের সদর দপ্তর সফরকালে ট্রাম্প ওই নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করে বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন ব্যবস্থার সুযোগ নিয়ে অপেক্ষাকৃত কম মজুরিতে বিদেশি শ্রমিকদের কাজে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমিকরা কাজের সুযোগ হারাচ্ছেন। এটা এবার বন্ধ হবে।’ ট্রাম্পের অভিযোগ, দেশের দক্ষ শ্রমিকদের বেশি মজুরি দিতে হয় বলে অল্প মজুরিতে বিদেশি শ্রমিকদের নিয়োগ করা হয়। নির্বাহী আদেশে বিদেশি শ্রমিকদেরও বেশি মজুরিতে নিয়োগের কথা বলা হয়েছে।
ওই নির্বাহী আদেশকে ঐতিহাসিক উল্লেখ করে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের নীতি হলো দেশি পণ্যকে অগ্রাধিকার দেওয়া এবং দেশের জনশক্তিকে কর্মসংস্থানে অগ্রাধিকার দেওয়া। যুক্তরাষ্ট্রেই সবার আগে।’ যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিকে আরও গতিশীল করার দাবিতে এর আগে ট্রাম্প একাধিক নির্বাহী আদেশ জারি করলেও তার আইনি বৈধতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। এই নির্বাহী আদেশে শ্রম, আইন, স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র বিভাগে প্রয়োজনীয় সংস্কার এনে দক্ষ ও সবচেয়ে বেশি মজুরির এইচ-১বি ভিসা নিশ্চিত করার আহ্বান জানানো হয়েছে। নির্বাহী আদেশে যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন ব্যবস্থায় ‘ভুয়া’ শ্রমিকদের খুঁজে বের করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে ওই ফেডারেল বিভাগগুলোকে।
বিদেশ থেকে উচ্চ দক্ষতাসম্পন্ন কর্মীদের যুক্তরাষ্ট্রে আনতে তাদের এইচ-১বি ভিসা দেওয়া হয়। যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির কারণে এ বছর এইচ-১বি ভিসার আবেদন কম জমা পড়েছে। এ বছর এক লাখ ৯৯ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। গত বছর এই সংখ্যা ছিল দুই লাখ ৩৬ হাজার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here