‘মূল সংবিধানের অনুচ্ছেদকে কোনো আদালত বিচার করার ক্ষমতা রাখেন না’

0
93
ঢাকা: মূল সংবিধানের কোনো অনুচ্ছেদকে কোনো আদালত বিচার করার ক্ষমতা রাখেন না বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

তিনি বলেন, বাহাত্তরের মূল সংবিধানে আমরা ফিরে যাচ্ছি। সংবিধানের সংশোধনীর মধ্য দিয়ে মূল সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদ ফিরে যাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার বিকালে নিজ কার্যালয়ে ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় বিষয়ে ব্রিফিংকালে অ্যাটর্নি জেনারেল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পঞ্চম সংশোধনীর মামলার রায়ে আপিল বিভাগ যে রায় দিয়েছিল সেখানে রাখা হয়েছিল, কিন্তু রিভিউয়ের আদেশে সব বাতিল করে দেয়া হয়েছে। সব আইন নতুন করে করতে বলা হয়েছিল।

তিনি বলেন, সংসদ আইন প্রণয়ন করবে এবং সংবিধান হলো সবার ওপরে। সংবিধানের আদি কোনো অনুচ্ছেদ কোনো বিচার বিভাগ সেটা ভালো কিংবা মন্দ সে সম্পর্কে বলতে পারবে না। আদালত ক্ষমতাপ্রাপ্ত হবেন তখনই, যখন সংবিধান সংশোধন হয়। যেখানে মূল সংবিধানে ফিরে যাচ্ছি। সংবিধানের  সংশোধনীর দ্বারা মূল সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদের ফিরে যাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

মাহবুবে আলম  বলেন, আমি একথাও বারবার বলেছি যে, আইন হবে। সে আইনে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার জন্য যত রকম কিছু সেভ গার্ড থাকা দরকার, সেটা থাকবে এবং সেই আইনটিকে অসাংবিধানিক ভালো-মন্দ সব বিচার করার ক্ষমতা আদালতের থাকবে। কিন্তু মূল সংবিধানের কোনো অনুচ্ছেদকে কোনো আদালত এটা বিচার করার ক্ষমতা রাখেন না।

তিনি বলেন, রিভিউ রায়ে ছিল মার্শাল ল’তে জারি করা সমস্ত ফরমান- আইন অবৈধ। তবে রাষ্ট্র পরিচালনার কাজে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বৈধতা দেয়া হলো, তারপর আর না।

সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল নিয়ে প্রশ্ন করা হলে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এ সম্পর্কে আমি কোনো মন্তব্য করবো না। আইন করা হবে কিনা সেটা সংসদের ব্যাপার। আর বিচারপতিরা সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের বৈঠকে বসেছেন এটা ওনাদের ব্যাপার।

এ অবস্থায় জুডিশিয়াল কাউন্সিল কোনো সিদ্ধান্ত নিলে সেটা যুক্তিযুক্ত হবে কিনা জানতে চাইলে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এ বিষয়েও আমি কোনো মন্তব্য করবো না, দেখি কী হয়।

ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হকের দেয়া বক্তব্যে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে সুপ্রিমকোর্ট বারের পক্ষ থেকে আপিল বিভাগে আবেদন জানায়।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আদালতে বিএনপিপন্থী কয়েকজন আইনজীবী বারের সভাপতি ও সম্পাদকও ছিলেন, তারা কতগুলো সংবাদপত্র নিয়ে আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছেন। বিচারপতি খায়রুল হক সাহেব ষোড়শ সংধোনীর বিষয়ে যে মন্তব্য দিয়েছেন, সে বিষয়ে ওনারা বলতে চেয়েছেন- এতে আদালত অবমাননা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি বলেছেন- ‘সুপ্রিমকোর্টের রায় নিয়ে, এই ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে, কেউ যেন কোনো রাজনীতি না করেন। কেউ যেন এটা রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার না করেন। রায় দিয়েছেন, এটা আদালতের বিষয়। যারা রাজনীতি করবে এটা তাদের বিষয় হতে পারে না।’