মুসলমান না হলে আত্মহত্যা করতেন কাদের সিদ্দিকী

0
125

5ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: আমি যদি মুসলমান না হতাম অনেক আগেই আত্মহত্যা করতাম । যে দেশে একটা ছাগলের গায়ে পিটা দিলে বিচার হওয়া উচিত, সেখানে কলেজ সরকারীকরণ আন্দোলনে পুলিশ একজন শিক্ষক ও জনতাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে আমি কি এই স্বাধীনতার জন্য রক্ত ঝরিয়েছি। আমার এসব যখন মনে হয় তখন বিক্ষোভে ফেটে পড়তে ইচ্ছা করে।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ সরকারিকরণের দাবিতে আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জে শিক্ষকসহ দু’জন নিহত হওয়ার ঘটনায় ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তম এসব কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়িয়া) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন ‘রাজাকার’ ছিলেন ।

বঙ্গবীর বলেন, আমি সরকারের ধর্মমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ মতিউর রহমানকে বলেছি আপনারা এত রাজাকারের বিচার করেন ফুলবাড়ীয়ার রাজাকার এমপি মোসলেমের বিচার করেন না কেন। মোসলেম উদ্দিন ১৯৭০ এর নির্বাচনে এমপিএ হয়েছিলেন কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে যায় নাই। আমি তাকে ধরার জন্য ১০ বার লোক পাঠিয়েছিলাম।

তিনি ধর্মমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমি এখান থেকে যাইতে না যাইতেই রাজাকার এমপি মোসলেমের নামে একটি যুদ্ধাপরাধের মামলা করবেন। আমি জীবনে কারো নামে মামলা করি নাই। কোন মামলায় সাক্ষ্য দেই নাই। এইবার আমি একজন রাজাকার এমপির সাক্ষি হতে চাই।

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বলেন, এত লম্ফঝম্ফ করবেন না। যাদেরকে নিয়ে লাফালাফি করছেন তারাই কিন্তু আপনাকে মারার জন্য এরোপ্লেনের তেলের পাইপ খুলে রেখেছিল। পুলিশ নাকি বিনা ভোটে আপনাকে গদিতে বসিয়েছে। সেই পুলিশ তো মানুষ পিটিয়ে হত্যা করবেই।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, এই দেশ এখন বড়ই পুলিশি দেশ হয়ে গেছে। রাজনীতি নাই বিরোধী দল নাই। আর বেশি দিন নাই পুলিশরাই আওয়ামীলীগারদের পিটিয়ে হত্যা করবে।

ফুলবাড়ীয়া ডিগ্রী কলেজ সরকারী করণ আন্দোলনে পুলিশের লাঠি পেটায় শিক্ষকসহ ২ জন নিহতের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবী করে বঙ্গবীর বলেন, জনতাকে সাথে নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাবো যতদিন দাবী আদায়সহ বিচার না হয়।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার বীর প্রতীক, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সম্পাদক প্রিন্সিপাল ইকবাল সিদ্দিকী, জেলা কমিটির সভাপতি প্রিন্সিপাল আব্দুর রশিদ, উপজেলা শাখার সভাপতি কাজী ইমান আলী, সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজা, ফুলবাড়ীয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এবি সিদ্দিক, জেলা ছাত্র আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক বিল্লাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY