মিয়ানমারে হস্তক্ষেপের বিপক্ষে রাশিয়া

0
87

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: মিয়ানমারের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের চেষ্টা পরিস্থিতি আরও নাজুক করে তুলতে পারে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, মিয়ানমারে ভীষণ আন্তঃধর্মীয় সংঘাত চলছে, বাইরের কোনো হস্তক্ষেপ সেই সংঘাতকে আরও শোচনীয় করতে পারে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এটা মনে রাখা আবশ্যক যে, একটি সার্বভৌম রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিলাষ সেখানকার আন্তঃধর্মীয় বিবাদ আবার ফিরিয়ে আনতে পারে। এক্ষেত্রে দেশটির সংকট নিরসনে সব ধর্মীয় নেতার মধ্যে একটি আন্তঃধর্মীয় সংলাপের ব্যবস্থাকে সমর্থন করে মস্কো’ এ ব্যাপারে আমরা রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিভিন্ন সংগঠনের সমন্বিত বিবৃতি বিবেচনায় নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা মিয়ানমার সরকারের পক্ষে আমাদের সমর্থন প্রকাশ করছি এবং সন্ত্রাসীদের প্ররোচনা এড়িয়ে চলতে সব ধর্মের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’ রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম তাস এ খবর দিয়েছে।

মিয়ানমার সরকারের প্রশংসা করে জাখারোভা বলেন, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের অধীনে আনান কমিশনের সুপারিশগুলো বাস্তবায়নে মিয়ানমার সরকারের প্রচেষ্টাকে মস্কো স্বাগত জানায়। তিনি বলেন, এই উদ্দেশ্যে সমাজকল্যাণ, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি বিশেষ কমিটি গঠন করেছে মিয়ানমার।’

তিনি আরও বলেন, মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুতদের তাদের বাড়িতে ফিরতে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘তথ্য-উপাত্ত মতে, দুই হাজার মানুষ তাদের বাড়িতে ফিরেছে। আমরা আশা করি, অন্যদের ক্ষেত্রেও এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ সেনাবাহিনীর প্রশংসা করে তিনি বলেন, রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিমান রোহিঙ্গাদের খাদ্য, ওষুধ ও অন্যান্য ত্রাণসামগ্রী সরবরাহ করছে।

জাখারোভা বলেন, ‘আমরা আশা করি সহিংসপীড়িত এলাকায় সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মীদের প্রবেশাধিকার স্বাভাবিক চর্চায় রূপ নেবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here