মাসে সোয়া কোটি টাকা ভাতা পাবেন মুগাবে!

0
68

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: জিম্বাবুয়ের পতিত স্বৈরশাসক রবার্ট মুগাবে ও তার স্ত্রী গ্রেসের জন্য ‘গোল্ডেন হ্যান্ডশেক’-এর ব্যবস্থা করেছে সরকার।

পদত্যাগের আগে মুগাবে এটা নিশ্চিত করে নেন যে ভবিষ্যতে তাকে যেন কোনো হয়রানির শিকার না হতে হয়। এজন্য মুগাবে পরিবারকে বিচার থেকে দায়মুক্তি দিয়েছে সরকার।

শুধু তাই নয়, ৯৩ বছর বয়সী এই সাবেক নেতাকে অবসরভাতা হিসেবে অন্তত ১ কোটি ডলার (৮২ কোটি টাকা) দিতে রাজি হয়েছে নতুন প্রশাসন। মুগাবের সঙ্গে সরকারের চুক্তির বিষয়ে অবগত একজন কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মুগাবের পরিবারকে বিচার থেকে দায়মুক্তির দেয়ার পাশাপাশি তার পরিবারের বিশাল বাণিজ্যিক সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধেও সরকার কোনো ব্যবস্থা নেবে বলে চুক্তি হয়েছে। তাছাড়া মুগাবেকে এখনই ৫০ লাখ ডলার (৪১ কোটি টাকা) দেয়া হবে। সামনের মাসগুলোতে তিনি আরও অর্থ পাবেন।

আমৃত্যু মুগাবেকে মাসে দেড় লাখ ডলার (প্রায় সোয়া কোটি টাকা) পরিশোধ করা হবে। শুধু মুগাবে একা নন, তার লোভী স্ত্রীও আমৃত্যু অবসরভাতা পাবেন। সেটাও কম নয়। মুগাবে যা পাবেন তার অর্ধেক ভাতা পাবেন গ্রেস।

অথচ জিম্বাবুয়ের জন্য মুগাবে ছিল এক জলজ্যান্ত অভিশাপ। তার ৩৭ বছরের শাসনে দেশটির অর্থনীতি একেবারেই ভেঙে পড়েছে। জিম্বাবুয়ের ৮০ ভাগ মানুষ এখন বেকার। মূল্যস্ফীতি অকল্পনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। রাস্তাঘাট ভাঙাচোরা। বিদ্যুতের ব্যবস্থা নেই। মৌলিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা নেই বললেই চলে। ঋণের ভারে দেশটি হাবুডুবু খাচ্ছে। জিম্বাবুয়ের নাগরিকদের গড় আয়ু ৬০ বছর, যা বিশ্বের প্রায় নিন্মতম।

একজন কর্মকর্তা জানান, মুগাবে দম্পতি হারারেতে তাদের অতিকায় বাসভবন ব্ল রুফে বাস করবেন। তাদের চিকিৎসা, কাজের লোকে, নিরাপত্তা ও বিদেশ ভ্রমণের খরচ রাষ্ট্রই বহন করবে। দেশে বহু খামার, খনি ব্যবসার পাশাপাশি মুগাবের পরিবারের বিদেশেও রয়েছে অঢেল সম্পদ।

গত সেপ্টেম্বরে মুগাবের এক ছেলে দুটি রোলস-রয়েস লিমোজিন আমদানি করেন। জিম্বাবুয়ের প্রধান বিরোধী দল মুভমেন্ট ফর ডেমোক্রেটিক চেঞ্জ বলেছে, মুগাবের সঙ্গে সরকারের এই চুক্তি অসাংবিধানিক।

সাবেক অর্থমন্ত্রীর বিচার শুরু : দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে জিম্বাবুয়ের সাবেক অর্থমন্ত্রী ইগনাটিয়াস চোম্বোর বিচার শুরু হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শনিবার তাকে হারারের একটি আদালতে হাজির করা হয়।

গত ১৪ নভেম্বর সেনাবাহিনী জিম্বাবুয়ের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর সাবেক প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে প্রশাসনের প্রভাবশালী যে কয়েকজন কর্মকর্তাকে আটক করা হয় তাদের একজন চোম্বো। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে আটক হওয়ার পর এই প্রথম চোম্বোকে জনসম্মুখে দেখা গেল। গাঢ় নীল রঙের স্যুট পরে আদালতে হাজির হয়েছিলেন তিনি।

চোম্বোর আইনজীবীর দাবি, আটক অবস্থায় তাকে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে এবং অসুস্থ হয়ে পড়ায় শুক্রবার তাকে হাসপাতালে ভর্তিও করা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY