মার্কিন সৈন্যদের দেহাবশেষ ফেরত উ. কোরিয়ার

0
16

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: আরও কয়েকজন মার্কিন সেনার দেহাবশেষ ফেরত দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে ৫৫টি দেহাবশেষ মার্কিন কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। শুক্রবার এগুলো উত্তর কোরিয়ার ওনসান শহর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার ওসানে মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে আনা হয়।

পিয়ংইয়ংয়ের এই পদক্ষেপের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছে হোয়াইট হাউস। এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আজ উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে দেয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে যুদ্ধে নিহত আমাদের সেনাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে দিয়েছে।’ খবর বিবিসির।

সম্প্রতি সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প ও কিমের বৈঠকের পরই দেহাবশেষ হস্তান্তরের ব্যাপারে একমত হয় দুই পক্ষ। তারই ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয়বারের মতো শুক্রবার দেহাবশেষগুলো ফেরত দেয় পিয়ংইয়ং। এর আগে চলতি বছরের ২০ জুন আরও ২০০ জনের দেহাবশেষ হস্তান্তর করা হয়।

১৯৫০-১৯৫৩ সালে সংঘটিত কোরীয় যুদ্ধে ৩৬ হাজারেরও বেশি মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে। নিখোঁজদেরও এ নিহতের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কোরীয় যুদ্ধের পর থেকে প্রায় ৭ হাজার ৭০০ মার্কিন সেনার হদিস মেলেনি। এর মধ্যে প্রায় ৫ হাজার ৩০০ সেনা উত্তর কোরিয়ায় নিখোঁজ হয়েছে।

১৯৯৬ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়ার সামরিক দলগুলো ৩৩টি উদ্ধার অভিযান চালিয়েছে। এসব অভিযানে মার্কিন সেনাদের ২২৯টি দেহাবশেষ উদ্ধার হয়। পরবর্তী সময়ে ওয়াশিংটন আনুষ্ঠানিকভাবে এ অভিযান বাতিল করে।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, তাদের তল্লাশিকারীদের জীবনের সুরক্ষা নিশ্চিত করা হয়নি। যদিও ২০০৬ সালে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষাকে বড় কারণ বলে মনে করা হয়।

২০০৭ সালে দেহাবশেষ হস্তান্তর করেছিল উত্তর কোরিয়া। সেসময় জাতিসংঘের সাবেক দূত ও নিউ মেক্সিকোর গভর্নর বিল রিচার্ডসন ছয়টি দেহাবশেষের হস্তান্তর নিশ্চিত করেছিলেন।

১২ জুন সিঙ্গাপুরে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে বৈঠক করেন ট্রাম্প। বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে দেহাবশেষ হস্তান্তরের ব্যাপারে একমত হন তারা।

এর কয়েকদিন পর মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, উত্তর কোরিয়া থেকে কোরীয় যুদ্ধে নিহত সেনাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনার প্রস্তুতি চলছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থানরত মার্কিন সেনারা এ প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এরপর ২০ জুন ২০০ মার্কিন সেনার দেহাবশেষ হস্তান্তর করে পিয়ংইয়ং।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here