‘মসলিন তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধারে গবেষণা চলছে’

0
86

emajodin2016092517395420170130190536ঢাকা: বিশ্বখ্যাত মসলিন কাপড় তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধারের জন্য গবেষণা চলছে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী মুহাঃ ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক। ১৩ ফেব্রুয়ারি সোমবার জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত সরকার দলীয় সংসদ সদস্য এম আব্দুল লতিফের (চট্টগ্রাম-১১ আসন) এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। এর আগে বিকেল ৪টা ৫০ মিনিটে স্পিকার শিরিন শারমিনের সভাপতিত্বে সংসদের অধিবেশন শুরু হয়।

ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক বলেন, ‘বিশ্বখ্যাত মসলিন কাপড় তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে প্রধানমন্ত্রী মসলিন তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধারের জন্য দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। সে অনুসারে বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যানকে আহ্বায়ক করে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা হয়। বিশেষজ্ঞ কমিটি মসলিন পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছেন।’

এর পাশাপাশি মসলিন কাপড় তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধারের জন্য বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড কর্তৃক ১২ কোটি ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ‘বাংলাদেশের সোনালি ঐতিহ্য মসলিন সুতা ও কাপড় তৈরির প্রযুক্তি পুনরুদ্ধার’ শীর্ষক একটি প্রকল্প গ্রহণের প্রস্তাব করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘গত বছরের ২০ নভেম্ভর এই প্রকল্পের উপর পিইসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পিইসি সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক ডিপিপি পুণর্গঠন করে বস্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পরিকল্পনা কমিশনে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রকল্পের ডিপিপি পরিকল্পনা কমিশনে অনুমোদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’

সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল্লাহ’র (লক্ষীপুর-৪ আসন) এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দেশে ধান, চালশ বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী পরিবহণে পলিথিনের ব্যাগের পরিবর্তে পাটের ব্যাগ ব্যবহারের জন্য সরকার ‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০’ এবং পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার বিধিমালা, ২০১৩’ প্রণয়ন করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আইনের প্রয়োগ এবং পাটের ব্যাগ ব্যবহার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সারা দেশে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। পুনরায় যাতে পলিথিনের বস্তা ব্যবহার না হয় সেজন্যও সারা দেশে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here