মঙ্গল শোভাযাত্রাবিরোধী ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটিতে কারা আছেন?

0
55

240816cb22201a367af156dcb9b44de8-583ecbf898938ঢাকা: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলা নববর্ষকে বরণের আয়োজনে মঙ্গল শোভাযাত্রা বাধ্যতামূলক করায় ক্ষুব্ধ হয়েছে কওমিপন্থী সংগঠন ও রাজনৈতিক দলগুলো। এর মধ্যে তৎপর হয়ে উঠেছে ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি নামে নতুন একটি সংগঠন। ইতোমধ্যে রাজধানীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন এর সদস্য ও কর্মীরা। আরও বিক্ষোভ এবং সমাবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। আগামী ২২ এপ্রিল একটি সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে সংগঠনটি।

মঙ্গল শোভাযাত্রার বিরোধীতা প্রসঙ্গে ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটির প্রচার সেলের সদস্য মাওলানা সুলতান মহিউদ্দীন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা সবার ওপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এটি ইসলামি সংস্কৃতি নয়, বাঙালি সংস্কৃতিরও অংশ নয়। আবহমানকাল ধরে মেলা এবং নানান উৎসব হলেও এ অঞ্চলে কখনও মঙ্গল শোভাযাত্রা হয়নি। এই শোভাযাত্রার নামে একটি নির্দিষ্ট ধর্মের দেবদেবীদের আকৃতির চিহ্ন বহন করা হয়।’

মঙ্গল শোভাযাত্রা বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় চলতি বছর বর্ষবরণের আয়োজনে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়েছে আনুষ্ঠানিকতা। গত ৩১ মার্চ ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। এর কয়েকদিন আগে গত ১৩ মার্চ গঠিত হয় সংগঠনটি। এর নেতৃত্বে রয়েছেন হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতারা। হেফাজতে ইসলাম নিজেদের ব্যানারে মাঠে না নামলেও সক্রিয় থাকছে ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটিতে।

মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুরকে আহ্বায়ক ও মাওলানা মাহফুজুল হককে সদস্য সচিব করে সংগঠনটির ৪৭ সদস্যের একটি কমিটি গত ২৩ মার্চ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করে। মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমির ও বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আমির এবং মাওলানা মাহফুজুল হক হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগরের যুগ্ম-আহবায়ক ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব। কমিটির অন্য সদস্যরাও হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও কওমি মাদ্রাসার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।

জানা গেছে, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা আমির মৃত মাওলানা মুহাম্মাদুল্লাহ হাফেজ্জী হুজুর ও জাতীয় মসজিদের সাবেক খতিব মুফতী আমিমুল এহসানের নামে একটি সড়কের নাম ছিল, যা সম্প্রতি বাতিল করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। ধর্মভিত্তিক রাজনীতি ও কওমি অঙ্গনে প্রভাবশালী ছিলেন এই হাফেজ্জী হুজুর। তার নামে পুনরায় সড়কের নামকরণ বাস্তবায়ন করতেই মূলত গঠিত হয়েছে ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি।

হাফেজ্জী হুজুরের নামে সড়কের নাম পুনরায় বাস্তবায়ন করতে ৩১ মার্চ বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে বিক্ষোভ মিছিল এবং সমাবেশ করলেও সংগঠনের নেতা ও অতিথিদের বক্তব্যে মঙ্গল শোভাযাত্রা বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত বাতিল ও সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণের ভাস্কর্য অপসারণের দাবি উঠে আসে জোরালোভাবে।

ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি সদস্য সচিব ও হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগরের যুগ্ম-আহবায়ক মাওলানা মাহফুজুল হক বাংলা ট্রিবিউন বলেন, ‘কমিটির নাম যেহেতু ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি, সুতরাং নামের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয় আলোচনায় থাকতেই পারে।’

মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুরের সভাপতিত্বে ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা নূর হুসাইন কাসেমী, মুফতি মুহাম্মাদ ওয়াক্কাস, মাওলানা মাহফুজুল হক, হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, মাওলানা আবুল হাসনাত আমিনী, শেখ গোলাম আসগর, মুফতি মাওলানা মামুনুল হক, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা ফজলুল করিম কাসেমী, মুফতি সাখাওয়াত হুসাইন, মুফতি ফখরুল ইসলাম, মাওলানা সুলতান মুহিউদ্দিন প্রমুখ। প্রত্যেকেই হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটি কিংবা ঢাকা মহানগর কমিটির বিভিন্ন দায়িত্বে রয়েছেন।

ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটি প্রসঙ্গে হেফাজতের এক কেন্দ্রীয় নেতা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘যারা ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারা প্রত্যেকেই হেফাজত সংশ্লিষ্ট। ফলে হেফাজতের ব্যানারে আন্দোলনের খুব বেশি প্রয়োজন নেই। যদি প্রয়োজন হয় হেফাজতের ব্যানারেও মাঠে নামবো।’

হেফাজত প্রসঙ্গে মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, ‘ইসলামী ঐতিহ্য সংরক্ষণ কমিটির অনেকেই হেফাজতেও আছেন। আলাদা করে হেফাজতের মাঠে নামার প্রয়োজন থাকলে হেফাজতের নেতারা সিদ্ধান্ত নিয়ে নামবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here