ভক্তদের সঙ্গে নিজেও কেঁদে ফাইনাল থেকে ছিটকে গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

0
252

article-3683342-3623B9CB00000578-838_964x390স্পোর্টস ডেস্ক: একেই বলে দুর্ভাগ্য! উয়েফা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল থেকে ছিটকে গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচের ২৪ মিনিটে স্ট্র্যাচারে করে মাঠ থেকে বেরিয়ে যান সিআর সেভেন।

অথচ পর্তুগালকে ফাইনালে তুলার মূল নায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। শুধু তাই নয়, ফাইনালেও পর্তুগালের আশার প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের এই সুপারস্টারকে। কিন্তু ম্যাচের শুরুতেই প্রতিপক্ষের মূল টার্গেটে পরিণত হন সিআর সেভেন। এর ফলে ম্যাচের ২৪ মিনিটেই মাঠ থেকে ছিটকে পড়তে হয় রোনালদোকে।

ম্যাচে ফ্রান্সের দিমিত্রি পায়েতের ট্যাকল সামলাতে গিয়েই পায়ে আঘাত পান রোনালদো। শেষ পর্যন্ত যা কাল হয়ে দাঁড়ায় সিআর সেভেনের। তার বদলি হিসেবে খেলতে নামেন কারিশমা। মাঠ ছাড়ার আগে মাত্র ৮বার বল স্পর্শ করার সুযোগ পান রোনালদো।

তবে মাত্র ২৪ মিনিট খেললেও নতুন এক মাইলফলক স্পর্শ করেছেন বিশ্ব ফুটবলের এই মহাতারকা। ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে চার বছরের বেশি সময়ের ব্যবধানে দুটি ফাইনাল খেলার অবিস্বরণীয় কীর্তি গড়লেন সিআর সেভেন। এর আগে ২০০৪ সালে ইউরোর ফাইনাল খেলেছেন রোনালদো। কিন্তু এক যুগ আগের সেই ফাইনালে গ্রীসের কাছে হেরে শিরোপা জয়ের স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায় পর্তুগালের। যে কারণে এবার শিরোপা জিততে মরিয়া ফার্নান্দো সান্তোসের দল।

ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়ার আগে ম্যাচের অধিনায়কত্বের ভার দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ন্যানির হাতে দিয়ে গেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। মাঠ ছাড়ার সময় রোনালদোর চোখে ছিল অশ্রু। শুধু সি আর সেভেনের চোখেই নয়, গ্যালারিতে থাকা পর্তুগীজ ভক্তদের কান্নাও ভেসে উঠছিল টেলিভিশনের পর্দায়!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here