ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলার সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ড

0
74

7cf82e4500703b435e539e162ad2067a-596725f762807ব্রাজিলের আদালতে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সে দেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলা দি সিলভার বিরুদ্ধে সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে।  তেল কোম্পানীর একটি কাজের ঠিকাদারি পাইয়ে দেয়ার কথা বলে প্রকৌশল প্রতিষ্ঠান ওএএস এসএর কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় বৃহস্পতিবার লুলাকে দণ্ড দেন আদালত। তবে লুলা নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। এ সংক্রান্ত আপিলের নিষ্পত্তি না হওয়া আপাতত কারাগারে যেতে হচ্ছে না লুলাকে।  বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এই খবর জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, রায়ের পর লুলা তার বিরুদ্ধে দেওয়া রায়কে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দাবি করেছেন। নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে তাকে দূরে রাখতেই এমন রায় দেওয়া হয়েছে বলে দাবি তার। তার আইনজীবীরা জানান, সাবেক প্রেসিডেন্ট নির্দোষ এবং এ বিষয়ে আপিল করবেন।

ব্রাজিলের জনপ্রিয়তম রাজনীতিবিদদের একজন লুলা দি সিলভা। দুর্নীতির অভিযোগ ওঠার পরেও তাকে নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাকে বিশ্বের জনপ্রিয়তম রাজনীতিবিদ হিসেবে উল্লেখ করেন। ব্রাজিলের বামপন্থীরা লুলার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগকে মার্কিন ষড়যন্ত্র হিসেবেও দেখে থাকেন।

ব্রাজিলে আগামী বছর অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন লুলা। তবে এর আগে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়া তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বড় ধরনের বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ২০০৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১১ সালের ১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন লুলা। এই সময়কালে ব্রাজিলের সমাজে জারি থাকা বৈষম্য কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা পালন করে সারা বিশ্বে প্রশংসিত হন সাবেক এই শ্রমিক নেতা।

আদালতের বিচারক সার্জিও মোরে রায়ে বলেন, প্রকৌশল প্রতিষ্ঠান ওএএস এসএর কাছ থেকে ঘুষ নেন লুলা। ব্রাজিলের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পেত্রোলিও ব্রাসিলিইরোর একটি কাজের ঠিকাদারি পাইয়ে দিতে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে লুলাকে এই অর্থ দেওয়া হয়েছিল।

তবে ব্রাজিলের রাজনীতিবিশ্লেষকরা লুলাকে জনকল্যাণে সম্পৃক্ত একজন রাজনীতিক হিসেবে চিহ্নিত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here