ব্রঙ্কসে বাংলাদেশ সোসাইটির অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান

0
99

নিউইয়র্ক: বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় নিউইয়র্কে ১৬ ডিসেম্বর শনিবার মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। উল্লেখ্য, দীর্ঘ ৯ মাস সশস্র সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালী জাতি পাক হানাদারদের পরাজিত করে স্বাধীন বাংলাদেশ। ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একাত্তরের মার্চ মাসে শুরু হওয়া মুক্তিযুদ্ধ শেষ হয় এই ডিসেম্বর মাসে। তাইতো ডিসেম্বর বিজয়ের মাস। লাখো শহীদের আতœত্যাগ আর শত-সহস্র মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়ের ৪৬তম বার্ষিকী ১৬ ডিসেম্বর। দিনটি স্মরণে নিউইয়র্ক সহ উত্তর আমেরিকার বাংলাদেশী বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করে।

বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস, জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশন, নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট ছাড়াও বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগ, শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদ ইউএসএ, মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর এসোসিয়েশন ইনক, আই.টি স্কুল এ্যড এ্যান্ড টেক সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করে।

বাংলাদেশ সোসাইটি: বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উদযাপন করেছে বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক। দিবসটি উদযপন উপলক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় ব্রঙ্কসের আল আসকা পার্টি সেন্টারে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ৫জন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী এবং সাহিত্য সম্পাদক ও বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মোহাম্মদ আব্দুল খালেক এবং গীতা থেকে পাঠ করেন শুভংকর গাঙ্গুলী। এরপর বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন এবং সকল শহীদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। আলোচনা পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সোসাইটির সমাজকল্যাণ সম্পাদক ও বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক নাদির এ আইয়ুব। এরপর আলোচনায় অংশ নেন সোসাইটির উপদেষ্টা কাজী আজহারুল হক মিলন, আলী ইমাম শিকদার, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন ও আব্দুল হাসিম হাসনু, মুক্তিযোদ্ধা তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আবু কায়সার, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট এন মজুমদার ও আব্দুস শহীদ, মোহাম্মদ শামীম মিয়া, শাহেদ আহমেদ, সিরাজ উদ্দিন আহমেদ সোহাগ, আহবাব হোসেন খোকন, সিরাজুল ইসলাম খান, কাওসার আহমেদ, হাজী খবির উদ্দিন ভূইয়া, আমিনুর রহমান শাওন।

এছাড়াও সোসাইটির কর্মকর্তাদেরর মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুর রহীম হাওলাদার, সহ সভাপতি আব্দুল খালেক খায়ের, সহ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ এম কে জামান, কার্যকরী পরিষদের সদস্য ও বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সাদী মিন্টু প্রমুখ। এছাড়াও কবিতা আবৃত্তি করেন মাকসুদা আহমেদ, পলি শাহীন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ৫জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ফুল দিয়ে সম্মানিত করা হয়। সম্মানিত মুক্তিযোদ্ধারা হলেন: কাজী আজহারুল হক মিলন, আলী ইমাম শিকাদার, তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, আবু কায়সার ও আবুল কাশেম চৌধুরী।

সাংস্কৃতিক পর্বে বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আটর্স-বাফা’র শিল্পীরা নয়নকাড়া নৃত্য পরিবেশন করে। শিল্পরা হলেন ফাতিহা, তিষা, কৃষ্ণা, চৈতন্য, আর্পিতা, নিরমা, মৃদুলা, মিথান, আনিকা, সানজিদা, ফাইজা ও ইশানী। নৃত্য পরিচালনায় ছিলেন অনুপ কুমার দাস। এছাড়া তাহমিনা শহীদ, বীণা মজুমদার, চন্দ্রা রায়, করীম হাওলাদার, মনিকা রায়, ন্যান্সী খান সহ প্রবাসের শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে সোসাইটির কর্মকর্তা কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মনিকা রায়, প্রচার ও জনসংযোগ সম্পাদক রিজু মোহাম্মদ, ক্রীড়া ও আপ্যায়ন সম্পাদক নওশাদ হোসেন, স্কুল ও শিক্ষা সম্পাদক আহসান হাবিব, কার্যকরী সদস্য ফরাহানা চৌধুরী, মাইনুল উদ্দিন মাহবুব, মোহাম্মদ আজাদ বাকের, আবুল কাশেম চৌধুরী ও সরোয়ার খান বাবু সহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী অংশ নেন।