ব্যবসা নয় সেবা করতে এসেছি: প্রধানমন্ত্রী

0
230

বগুড়া প্রতিনিধি: ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৬ ফেব্রুয়ারি রোববার বগুড়ার সান্তাহারে স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা ব্যবসা করতে আসিনি, মানুষের সেবা করতে এসেছি। বিএনপি তাদের শাসনামলে শুধু দুর্নীতির রাজনীতি করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ২৫ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন এ ধরনের খাদ্যগুদাম এ দেশে এর আগে আর কেউ করেনি। আমরা ক্ষমতায় এসে সারের দাম কমিয়েছি। এখন সারের কোনো অভাব নেই। এক সময় সারের জন্য কৃষককে জীবন দিতে হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমরা বিনা পয়সায় ছাত্র-ছাত্রীদের বই দিয়েছি। বইয়ের অভাবে এখন আর কারও পড়ালেখা বন্ধ থাকে না। শিক্ষার্থীদের একটা কথাই বলব বইগুলো দিতে আমাদের অনেক কষ্ট করতে হয়েছে। তাই আমরা চাইব তোমরা মনোযোগ দিয়ে পড়ালেখা করবে। ভালো মানুষ ও শিক্ষিত জাতি হিসেবে গড়ে উঠতে হলে শিক্ষার বিকল্প নেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেক উপজেলা থেকে ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত পাকা রাস্তা হবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার কোন অপ্রতুলতা রাখা হবেনা।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহারে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন বহুতল বিশিষ্ট অত্যাধুনিক খাদ্যগুদাম উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর সেখানে একটি আম গাছের চারা রোপণ করে মোনাজাতে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সী’র (জাইকা) সহযোগিতায় প্রায় ২শ’ ৩২ কোটি ৭১ লাখ টাকা ব্যয়ে খাদ্য অধিদপ্তর এই আধুনিক শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত সাইলোটি নির্মাণ করে। এটি সৌরশক্তির সাহায্যে পরিচালিত হবে এবং এখানে সারাবছর খাদ্যশস্য মজুদ থাকবে।

এই সাইলোটিতে খাদ্যশস্য সারাবছর একটি নিয়ন্ত্রিত তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা সম্ভব হবে বিধায় এতে খাদ্যগুণ অটুট থাকবে। প্রধানমন্ত্রী সাইলোটি ঘুরে দেখেন। এসময় তিনি বলেন, তাঁর সরকার খাদ্য মজুদ বাড়ানোর জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। ২০২১ সাল নাগাদ দেশ শতভাগ খাদ্য মজুদের সক্ষমতা অর্জন করবে বলেও প্রধানমন্ত্রী এ সময় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, স্থানীয় সংসদ সদস্যবৃন্দ এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।প্রধানমন্ত্রী এ সময় সাইলো প্রাঙ্গণে একটি আম গাছের চারাও রোপণ করেন। আজ সকালেই বিভিন্ন উন্নয়নকাজের উদ্বোধন এবং ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়ায় পৌঁছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করছেন সেগুলো হচ্ছে- নন্দিগ্রাম উপজেলা কমপ্লেক্সের সম্প্রসারিত ভবন ও হলরুম; শাহজাহানপুর থানা ভবন, সমন্বিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষা কার্যক্রম ভবন, শাহজাহানপুর; শিবগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, সোনাতলা উপজেলার সিচারপাড়া-৩ গুচ্ছগ্রাম, সারিয়াকান্দি উপজেলার ১২টি আশ্রয়ণ প্রকল্প, আদমদিঘী উপজেলায় সোলার প্যানেলযুক্ত পাতকুয়ার মাধ্যমে সেচ কার্যক্রম, জেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস ভবন এবং বগুড়া সদর উপজেলার নুনগোলা ইউনিয়নে ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র।

যে সব প্রকল্পের ভিত্তিপস্তর স্থাপন করবেন সেগুলো হচ্ছে- সারিয়াকান্দি মহাসড়কে খৈলসাকুড়ি সেতু, বগুড়া-সারিয়াকান্দি মহাসড়কে জয়ভোগা সেতু, বগুড়া-সারিয়াকান্দি মহাসড়কে হাটফুলবাড়ী সেতু, কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণে সোনাতলা উপজেলায় ১০ কি. মি. রাস্তা; কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণে সারিয়াকান্দি উপজেলায় ১০ কি.মি রাস্তা, বগুড়া প্রেসক্লাব ভবন এবং সোনাতলা উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম। পরে প্রধানমন্ত্রী শান্তাহার স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায়ও বক্তৃতা করবেন। প্রধানমন্ত্রী সন্ধ্যা নাগাদ ঢাকায় ফিরে যাবেন।-