বোল্টের ক্যারিয়ারের সেরা ছবিটা তুলেছেন ক্যামেরুনের স্পেনসার!

0
190

121641Boltw_kalerkantho_pictureস্পোর্টস ডেস্ক: ফিনিশিং লাইনের কাছে পৌঁছে গেছেন জ্যামাইকান বিদ্যুৎ উসাইন বোল্ট। জিতে যাচ্ছেন ১০০ মিটারের সেমিফাইনাল। নিরাপদ দূরত্বেই রেখেছেন অন্য প্রতিযোগীদের। এই সময় ঘাড় বাঁকিয়ে ক্যামেরাম্যানের দিকে তাকিয়ে হাসা! এবং সেটি ক্যামেরাম্যানের ক্যামেরায় বন্দি হয়ে যাওয়া! অসাধারণ সেই মুহূর্তটি ক্যামেরুনের ফটোগ্রাফার ক্যামেরন স্পেন্সার তুলেছেন। বিজয়ীর হাসি নিয়ে ছোটা ওই ছবিকে বলা হচ্ছে বোল্টের ক্যারিয়ারের সেরা ছবি।

“তার পোজ, ছুটে চলা, পারফেক্ট টেকনিক, এর সাথে আমি যেখানে দাঁড়িয়ে সেদিকে তাকিয়ে বড় হাসি ছবিটাতে সবকিছু এনে দিয়েছে-” তৃপ্তির সাথে বলেছেন স্পেন্সার। গেটি ইমেজের সিডনিভিত্তিক ফটোগ্রাফার তিনি। ফটোগ্রাফারদের জন্য স্বপ্নের ছবি তোলা স্পেন্সারের বিশ্বাস ভাগ্য সহায় হলেই কেবল এমন ছবি কপালে জোটে।

এই ক্যামেরা শিল্পি জানিয়েছেন, গেটি ইমেজ বোল্টের ১০০ মিটার স্প্রিন্টের সেমিফাইনাল ও ফাইনালের ছবি তুলতে ১১ জন ক্যামেরাম্যানকে কাজে লাগিয়েছিল। সব মিলিয়ে ব্যবহার করা হয়েছে ৩৮টি ক্যামেরা। স্পেন্সার নিজেই ব্যবহার করেছেন চারটি। “তিনটি রিমোট ক্যামেরা ফিনিশিং লাইনে বসিয়েছিলাম। একটি ছিল আমার হাতে।” স্পেন্সার বলছিলেন অনেক অ্যাঙ্গেল কাভার করার সুযোগ ছিল বলেই ঝুঁকিটা তিনি নিতে পেরেছেন।

স্পেন্সার হাই জাম্প বাছাইয়ের ছবি তোলার মাঝপথে এসেছিলেন বোল্টের সেমিফাইনালে। সাড়ে তিন মিনিটের মধ্যে ছবি তোলা ও আপলোড করার কাজ শেষ করেছেন। ফিরেছেন হাই জাম্পে। স্পেন্সার বলছিলেন, “৭০ মিটারের জায়গায় ছিলাম আমি। তার সাথে তার গতিতে ক্যামেরা নিয়ে ছুটতে হয়েছে। তখন বুঝিনি আমার দিকে তাকিয়ে হাসছেন তিনি। ক্যামেরায় যখন দেখলাম তিনি হাসছেন তখন বললাম, ‘বাহ। এটা স্পেশাল’। একেবারেই অপ্রত্যাশিত ছিল বলেই তা স্পেশাল বেশি। ঝুঁকি নেওয়ার পুরস্কার পেয়েছি।”

LEAVE A REPLY