বিশ্বকাপের পদক নেবেন না ক্রোয়েশিয়ার সেই ফুটবলার

0
19

স্পোর্টস ডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয় ফ্রান্স। প্রতিযোগিতায় রানার্সআপ হয় ইউরোপের দেশ ক্রোয়েশিয়া।

রাশিয়ায় ২৩ জনের স্কোয়াড নিয়ে বিশ্বকাপে এসেছিল ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু শেষমেশ তাদের স্কোয়াড দাঁড়ায় ২২ জনে। ক্রোয়েশিয়ার ফরোয়ার্ড নিকোলা কালিনিচকে একটাও ম্যাচে না খেলিয়ে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন কোচ জলাৎকো দালিচ।

প্রথম ম্যাচের পরই দেশে ফিরেছিলেন কালিনিচ। বিশ্বকাপে এক মিনিটের জন্যও দেশের হয়ে খেলা হয়নি তার। আর সে জন্যই বিশ্বকাপের রানার্সআপ হওয়ার জন্য ক্রোয়েশিয়ার ফুটবলারদের যে পদক দেওয়া হয়েছে তা নিতে অস্বীকার করেছেন তিনি।

ক্রোয়েশিয়া বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলেছে, অথচ বিশ্বকাপে তার কোনও অবদান নেই বলে মনে করেন কালিনিচ। ফলে ফিফার দেওয়া পদক তিনি নেননি। নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে তাকে পরিবর্তিত খেলোয়াড় হিসাবে নামাতে চেয়েছিলেন কোচ দালিচ। কিন্তু নামতে চাননি কালিনিচ। তার পরই তাকে দল থেকে বাদ দিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ।

ক্লাব ফুটবলে মিলানের হয়ে খেলা কালিনিচ বিশ্বকাপ শুরুর আগে প্রস্তুতি ম্যাচেও ব্রাজিলের বিপক্ষে খেলতে পারেননি। পিঠে ব্যাথার জন্য তাকে সাইড বেঞ্চে বসতে হয়েছিল। দালিচ পরে বলেছিলেন, তিনি শতভাগ ফিট ফুটবলারদের নিয়ে বিশ্বকাপ যুদ্ধে নামতে চেয়েছিলেন।

ফ্রান্সের বিপক্ষে বিশ্বকাপ ফাইনালে পরাজয়ের পর রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া দলের ফুটবলাররা রুপার পদক পান। দলের অন্য ফুটবলার ও সাপোর্ট স্টাফরা কালিনিচকে পদক প্রাপকদের তালিকায় রেখেছিলেন। কিন্তু তিনি তা নিতে অস্বীকার করেন। কালিনিচের বদলে দলের একমাত্র স্ট্রাইকার মারিও মানজুকিচের উপর ভরসা রেখেছিলেন কোচ দালিচ। ছয় ম্যাচে তিনটে গোল করে কোচের ভরসার মান রেখেছিলেন মানজুকিচ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here