বিচার বিভাগ স্বাধীন বলেই এমন রায়: হানিফ

0
36
রাজশাহী ব্যুরো: আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, ‘দেশের বিচার বিভাগ স্বাধীন বলেই আদালত এমন রায় দিতে পারছেন। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের  রায় নিয়ে দেশের মানুষ উদ্বিগ্ন।’

শনিবার দুপুরে রাজশাহীতে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী প্রশিক্ষণ ও শোক দিবস উপলক্ষে বিশেষ দোয়া এবং দাওয়াতি মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডা. কাইছার রহমান অডিটোরিয়ামে বিভাগীয় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে মাহবুবউল আলম হানিফ আরো বলেন, ‘এই ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে দেশের মধ্যে একটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। আমি আদালতের রায় নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না। কিন্তু আদালতের বিচার্য বিষয়ের বাইরে পর্যবেক্ষণের কথা বলে জাতির মধ্যে যে বিতর্কের সৃষ্টি করা হয়েছে সেই কথাটা আমি বলতে চাই।’

তিনি প্রধান বিচারপতিকে ইঙ্গিত করে বলেন, ‘রায়ের পাশে পর্যবেক্ষণে অনেক কথা বলেছেন। সংসদ নিয়ে কটাক্ষ করা হয়েছে। সংসদ নিয়ে বলেছেন, যে সংসদ সদস্যরা অপরিপক্ক। তারা নিজেরাই (এমপিরা) যোগ্য কি না এটা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। আজকে যে এই রায় দিচ্ছেন, আপনারা কার দ্বারা নিয়োজিত? কার দ্বারা নিয়োগপ্রাপ্ত? এই সংসদের মাধ্যমে গঠিত সরকার, সেই সরকারের রাষ্ট্রপতি দ্বারা নিয়োগপ্রাপ্ত। যদি সংসদ সদস্যরা অযোগ্য ব্যক্তি হন, তাহলে আপনারা অযোগ্য ব্যক্তির দ্বারা নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে এখানে কথা বলছেন।’

তিনি বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনীর একটা অনুচ্ছেদে ছিল- কোনো বিচারপতি যদি শারীরিকভাবে অসামর্থ্য বা তার বিরুদ্ধে কোনো অনৈতিক অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তবে তদন্ত কমিটির মাধ্যমে সংসদে আসলে সেখানে আলোচনার মাধ্যমে ওই বিচারপতিকে অপসারণের ক্ষমতা সংসদ রাখতে পারে। এই সংসদ জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে। ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতাকে হরণ করা হলো।’

হানিফ আরো বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম। এখানে জাতির পিতার বাইরে অন্য কারও কথা বলার কোনো সুযোগ নেই। এই একক নেতৃত্বের বিরুদ্ধে যারা কথা বলতে চান, তারা মূলত স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করার চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছেন। আমরা পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিতে চাই, সাংবিধানিক পদে থেকে আপনি ইতিহাস বিকৃতি করবেন, এটা বাংলাদেশের জনগণ কখনো মেনে নিবে না।’

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর খুনি জিয়াউর রহমান। খুনি জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার দাবি করে আসছি। বিচারের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু হত্যায় তার সম্পৃক্ততা প্রমাণ পাওয়া যাবে। বঙ্গবন্ধু হত্যার মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসে জিয়া স্বাধীনতা বিরোধীদের পুর্নবাসন করেছেন। জাতির বিভাজন তৈরি করেছেন। জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার হলে জাতির বিভক্ত দূর হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘স্বাধীনতার ইতিহাস নিয়ে বিএনপি-জামায়াত বহুবার বিতর্ক করেছে। যারা একাত্তরের পরাজিত শক্তি, একাত্তরের স্বাধীনতা বিরোধী তারাই স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করার চেষ্টা করছে।’

সমাবেশে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ আখতার জাহান, রাজশাহী মহানগর পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার সরদার তমিজ উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here