বিচার বিভাগে রক্ষণশীলতা আনতে যাচ্ছেন ট্রাম্প!

0
94

9b46dea8c94ba97ffe1c6694ad83aca8-4আন্তর্জাতিক ডেস্ক: হোয়াইট হাউসে নিল গোরশাচ (বাঁয়ে) ও ডোনাল্ড ট্রাম্প l রয়টার্সবিতর্কিত ব্যক্তিত্ব নিল গোরশাচকে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর মধ্য দিয়ে দেশটির সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিদের মধ্যে রক্ষণশীল রিপাবলিকানপন্থীদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা ফিরিয়ে আনার মোক্ষম সুযোগকে দ্রুত কাজে লাগালেন তিনি। রিপাবলিকান নেতারা কিছুদিন ধরেই এটা করার কথা বলে আসছিলেন। কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের সংখ্যালঘু ডেমোক্র্যাট নেতা ন্যান্সি পেলোসি নিল গোরশাচের মনোনয়নের বিরোধিতা করে বলেছেন, বিচারপতি হিসেবে তাঁর নিয়োগ নিশ্চিত হলে তা অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ ফল বয়ে আনবে না।

তিনি এই বিচারপতিকে নারী অধিকারের প্রতি বৈরী মনোভাবাপন্ন ব্যক্তি হিসেবে আখ্যায়িত করেন। প্রভাবশালী ডেমোক্র্যাট সদস্য এলিজাবেথ ওয়ারেন বলেন, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য কোনো ব্যক্তিকে এ পদে বেছে নেওয়ার সুযোগ ছিল ট্রাম্পের। তা না করে তিনি এমন একজনকেই বাছলেন, যিনি কিনা শ্রমিক মজুরি বৃদ্ধির বিরোধী, অন্যায়ভাবে কর্মী ছাঁটাইকারী বা গোপন তথ্য ফাঁসকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়া নিয়োগকর্তাদের সমর্থক।

স্বভাবতই গোরশাচকে মনোনয়ন দিয়ে ট্রাম্পের নেওয়া সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে রিপাবলিকান শিবির। যেমন সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেন, তিনি (গোরশাচ) আকর্ষণীয় অতীতের অধিকারী মানুষ। সংবিধান ও আইন বিশ্বস্ততার সঙ্গে প্রয়োগের দীর্ঘ রেকর্ড রয়েছে তাঁর।

গত মঙ্গলবার রাতে দেওয়া এক ভাষণে ট্রাম্প কলোরাডোর ডেনভার শহরের ৪৯ বছর বয়সী গোরশাচকে আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে বেছে নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। এ মনোনয়নকে সিনেট অনুমোদন দিলে তিনি বিচারপতি আন্তোনিন স্কালিয়ার স্থলাভিষিক্ত হবেন। বছরখানেক আগে স্কালিয়া মারা গেলে তাঁর পদটি শূন্য হয়। গোরশাচের মনোনয়ন নিশ্চিত হলে সুপ্রিম কোর্টে রক্ষণশীল রিপাবলিকান ভাবধারার বিচারপতির সংখ্যা হবে পাঁচ। বিপরীতে ডেমোক্র্যাট ভাবধারার বিচারপতির সংখ্যা নেমে আসবে চারে। বিশ্লেষকেরা বলছেন, গোরশাচের নিয়োগ ব্যবসা-বাণিজ্যবিষয়ক নিয়ন্ত্রণ ও নারী-পুরুষের অধিকার থেকে শুরু করে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের মতো বিষয়গুলোতে বড় রকমের প্রভাব ফেলতে পারে। গোরশাচের মনোনয়নকে রক্ষণশীল খ্রিষ্টান ও রিপাবলিকান সমর্থকদের প্রতি ট্রাম্পের এক প্রতিদান হিসেবে ধরা হচ্ছে। ট্রাম্পেরও তা-ই খোলামেলা স্বীকারোক্তি, ‘লাখ লাখ ভোটার বলেছেন, এটা তাঁদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একক ইস্যু, যে জন্য তাঁরা আমাকে ভোট দিয়েছেন।’

LEAVE A REPLY