বাড়ছে বিমানের ভাড়া

0
310

19ঢাকা: বিমান ভাড়া বাড়বে বলে জানিয়েছে এয়ারলাইন্সগুলো। দেশি-বিদেশি সব এয়ারলাইন্সকে ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত অ্যারোনটিক্যাল চার্জের ওপর ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট দিতে হবে। গত বছর ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক) আরোপ করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। যদিও ভ্যাট আরোপের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে রিট দায়ের করে একাধিক এয়ারলাইন্স। যা সম্প্রতি খারিজ করে দেন আদালত। ফলে বিমান ভাড়া বাড়বে বলে জানিয়েছে এয়ারলাইন্সগুলো।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিমান ল্যান্ডিং, পার্কিং, রুট নেভিগেশনসহ বিভিন্ন অ্যারোনটিক্যাল খাতের মাশুল বাবদ এয়ারলাইন্সগুলো অর্থ পরিশোধ করে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের কাছে। এসব চার্জের ওপর গত বছর ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করে এনবিআর। পাশাপাশি এয়ারলাইন্সগুলোকে ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত বকেয়া ভ্যাট পরিশোধের আদেশও দেওয়া হয়। এরপর উচ্চ আদালতে ভ্যাটের বিরুদ্ধে একাধিক এয়ারলাইন্স রিট দায়ের করে। যা সম্প্রতি খারিজ করে দেন আদালত। এ রায়/আদেশের সার্টিফাইড কপি গত ১ মার্চ দেওয়া হয়। যা পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণের জন্য সিভিল এভিয়েশনে পাঠানো হয় ৩০ জুন। ফলে অ্যারোনটিক্যাল চার্জে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ে কোনও বাধা নেই।

হাইকোর্ট থেকে রায়ের কপি পাওয়ার পর দেশি-বিদেশি যেসব এয়ারলাইন্স অ্যারোনটিক্যাল সেবা নেয় তাদের চিঠি দিয়েছে সিভিল এভিয়েশন। ভ্যাট আদায়ের জন্য দেশের সব বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপকদের নির্দেশনা দিয়েছে সিভিল এভিয়েশন।

জানা গেছে,অ্যারোনটিক্যাল চার্জের ওপর ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ এবং বকেয়া ভ্যাটের কারণে বিপাকে পড়েছে এয়ারলাইন্সগুলো। বিশেষ করে ২০০৯ সাল থেকে বকেয়া ভ্যাট নিয়ে অসন্তোষ রয়েছে দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্সগুলোর।

এ বিষয়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, দেশের এয়ারলাইন্সগুলো বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার সঙ্গে লড়াই করে ব্যবসা করছে। বিমানের সব ধরনের যন্ত্রাংশই আমদানি করতে হয়। সেসব যন্ত্রাংশ আমদানি করতেও ভ্যাট দিতে হয়। বাড়তি ভ্যাটের কারণে পরিচালন ব্যয় আরও বাড়বে। ফলে যাত্রীদের ভ্রমণ ব্যয় বাড়াবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here