বাজেট আলোচনায় আগ্রহ হারিয়েছেন সাংসদরা

0
214

SANSHAD1435223401দশম জাতীয় সংসদের ২০১৬-১৭ আর্থবছরের বাজেট আলোচনায় আগ্রহ দেখাচ্ছে না সংসদ সদস্যরা। অধিবেশন চলাকালে অধিকাংশ সংসদ সদস্য বাজেট আলোচনায় অনিহা প্রকাশ করছেন। তারা সংসদে উপস্থিত থাকলেও আলোচনায় আংশ নেননি। এ নিয়ে অধিকাংশ দিন স্পিকার- ডেপুটি স্পিকার ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ক্ষোভ জানিয়েছেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির এমপিরাও। বাজেট অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের অনুপস্থিতির বিষয়ে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তারা ।

বিরোধী দলীয় সদস্য খোরশেদ আরা হক তার বক্তৃতায় বলেন, আমরা সম্মানিত সংসদ সদস্য। বাজেট নিয়ে আলোচনা করছি। আর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এখানে উপস্থিত নেই। এটা কি ধরণের কথা। তাদের উপস্থিত থাকা উচিত ছিলো।

বিরোধীদলীয় চীফ হুইপ তাজুল ইসলাম বলেছেন, অর্থমন্ত্রী দেশের ইতিহাসে বৃহত্তর বাজেট দিয়েছেন। বাজেটের মোট আকার ৩ লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকা। বাজেটে আয়-ব্যয়ের ঘাটতি ধরা হয়েছে ৯২ হাজার ৩৩৭ কোটি টাকা। অনুদান ছাড়া যার পরিমাণ হবে ৯৭ হাজার ৮৫৩ কোটি টাকা। এত বড় ঘাটতি নিয়ে বাজেটের অর্থায়নের বিষয়ে প্রশ্ন থেকে যায়। সীতিম সম্পদের এ দেশে ঘাটতি মেটাতে সরকারকে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। বিশাল এই বাজেট কিভাবে বাস্তবায়িত হবে, বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী তা স্পষ্ট করেননি। বাজেটে ৭.২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষমাত্রা নির্ধারন করা হলেও কিভাবে তা অর্জিত হবে তা নিয়ে সুস্পষ্ট কোন দিক নির্দেশনা নেই। সার্বিক বিশ্লেষনে বলা যায় এই বাজেটে কোন চমক নেই। বাজেট বাস্তবায়নের কোন পথ দেখছি না।

সংসদের বিরোধী দল চাড়াও বাহিরের বিরোধি দল বিএনপি বলছে, এ বাজেট উচ্চ ভিলাসী বাজেট এটি ব্যাস্তবায়ন করতে পারবে না সরকার। তারা বলছে জনগণের ভোট ছাড়া নির্বাচিত সাংসদ মন্ত্রী হওয়ায় তারা বাজেট ও দেশের মানুষের কথা ভাবছে না। এনিয়ে আলোচনা করছে না। অবৈধ সরকারে অবৈধ বাজেট বলে সম্বর্ধন করেছে বিএনপি।

এদিকে আর্থ মন্ত্রণালয় সৃত্রে জানা গেছে, গত বছরের ন্যায় এবারও বাজেট কাটছাট করে ছোট করতে যাচ্ছে সরকার। ২০১৬- ১৭ অর্থ বছরে ৩ কোটি ৪০ লাখ ৯৭ কোটি টাকার বাজেট দেওয়া হয়েছে। এখানে ঘাটতি রয়েছে ৯৭ হাজার ৮৫৩ কোটি টাকা। গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরেও দুই লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি টাকার বড় বাজেট দিয়ে কাঁট-ছাট করেছিল সরকার। এবছরও বাজেটে কাটছাট – করে ছোট করা হবে বলে অর্থমন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here