বাংলাদেশে শাওমি মোবাইলের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

0
279

MI-Phoneবিশ্বের পঞ্চম শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান শাওমি বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালু করেছে। দেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের সঙ্গে বিশ্বখ্যাত মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড শাওমি তার জাতীয় ডিস্ট্রিবিউটরের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো দেশের বাজারে তিনটি স্মার্টফোন এনেছে। গত ১০ আগস্ট, গ্রামীণফোনের কর্পোরেট অফিসে গ্রামীণফোনের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান এবং বাংলাদেশে শাওমির একক পরিবেশক প্রতিষ্ঠান সোলার ইলেক্ট্রো বিডির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডি এম মজিবর রহমানের উপস্থিতিতে উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শাওমি রেডমি থ্রি, এমআই ম্যাক্স ও এমআই ফাইভ স্মার্টফোন তিনটি গ্রামীণফোনের মাধ্যমে বাজারজাত শুরু করল প্রতিষ্ঠানটি। স্মার্টফোন তিনটিতে আছে অত্যাধুনিত ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রযুক্তি, উন্নত ক্যামেরা, সুবিশাল মেমোরি ধারণ ক্ষমতা, অসাধারণ ডিসপ্লে এবং নজরকাড়া ডিজাইন যেগুলো সহজেই তরুণদের আকর্ষণ করবে। ১৬,৯০০ টাকা, ২৬,৪৯০ টাকা এবং ৩৭,৯০০ টাকায় ক্রয় করা যাবে যথাক্রমে শাওমি রেডমি থ্রি, এমআই ম্যাক্স ও এমআই ফাইভ। আন্তর্জাকিত সংস্করণের উক্ত স্মার্টফোন তিনটিতে পাওয়া যাবে এক বছরের অফিসিয়াল ওয়ারেন্টি।

হাই-এ্যান্ড স্মার্টফোনের বাজারে শাওমি’র এমআই ফাইভ চমৎকার একটি ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস। ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতার বিচারে ডিভাইসটি বলা হচ্ছে ‘আলোর মত গতিময়’। অভিজাত ডিজাইনের এমআই ফাইভে আছে ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, শক্তিশালী চিপসেট, মেটাল ইউনিবডি, উন্নত ক্যামেরা এবং অন্যান্য আকর্ষণীয় ফিচার। ডিভাইসটির ব্যাটারিতে ব্যবহার করা হয়েছে পাওয়ার ইফিসিয়েন্ট প্রযুক্তি যার দ্বারা স্মার্টফোনটিকে মাত্র ৩০ মিনিটে ৮৩ শতাংশ চার্জ করা যায়। যাত্রা শুরু উপলক্ষ্যে গ্রামীণফোনের লিঃ-এর সঙ্গে মিলে শাওমি ক্যাম্পেইন অফার দিয়েছে যেখানে ক্রেতারা এমআই ফাইভের ক্রয় করলে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের একটি শাওমি পাওয়ার ব্যাংক উপহার হিসেবে পাবেন।

দেশের শীর্ষস্থানীয় ডিজিটাল সেবা প্রদানকারী মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোনের সঙ্গে মিলে দেশের বাজারে শাওমির উক্ত তিনটি হ্যান্ডসেট বাজারজাত শুরু করেছে যেগুলো ক্রয় করা যাবে ১২ মাসের ইমএমআই বা কিস্তি সুবিধার মাধ্যমে। সঙ্গে থাকছে গ্রামীণফোনের আকর্ষণীয় ইন্টারনেট ডাটা প্যাকেজ। ১১ আগস্ট থেকে আগামী ১৭ আগস্ট পর্যন্ত সময়সীমার মধ্যে গ্রামীণফোনের ওয়েবসাইটে গিয়ে আগ্রহী ক্রেতারা চাইলে অগ্রিম বুকিং দিতে পারবেন।

একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ডাউনপেমেন্ট পরিশোধ করে বুকিং নিশ্চিৎ করতে হবে। আগামী ১৮ আগস্ট গ্রামীণফোনের নির্দিষ্ট সেন্টারে গিয়ে নিজেদের বুকিং দেয়া শাওমি ডিভাইস গ্রহণ করতে পারবেন ক্রেতারা। এছাড়া ঘরে বসে ডিভাইস পেতে হলে গ্রামীণফোনের অনলাইন শপ ‘জিপিশপ’ থেকে অর্ডার করা যাবে। তবে সেক্ষেত্রে নির্দিষ্ট মডেলের শাওমি ডিভাইসের পুরো দাম পরিশোধ করে বুকিং দিতে হবে।  উল্লেখ্য, বুকিং দিতে ক্রেতাদের নিম্নে উল্লেখিত সাইটে যেতে হবে।www.Grameenphone.com/shop/preorder

প্রসঙ্গত, শাওমি একটি ব্যাক্তি মালিকানাধীন ইলেক্ট্রোনিক্স প্রতিষ্ঠান যাদের মূল অফিস চীনের রাজধানী বেইজিং-এ অবস্থিত। বর্তমানে এটি বিশ্বের ৫ম শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। গত ২০১৫ সালে সারাবিশ্বে ৭০.৮ মিলিয়ন ডিভাইস বিক্রি করে শাওমি, যা গ্লোবাল স্মার্টফোনের মোট বিক্রির ৫ শতাংশ। আকর্ষণীয় দামে ক্রেতাদের উন্নত, আধুনিক ডিভাইস কেনার সুযোগ করে দেয়ার মাধ্যমে শাওমি অল্পদিনেই এই সাফল্য অর্জন করে। ডিজাইন করা, ডেভেলপ করা, স্মার্টফোন বিক্রি, মোবাইল অ্যাপ, ল্যাপটপ, এবং ইলেক্ট্রোনিক্স সম্পর্কিত ব্র্যান্ড হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত শাওমি। শাওমি’র সকল পণ্য উৎপাদন করে ফক্সকন এবং ইনভেনটেক। বিস্তারিত জানতে: http://www.mi.com/en/