বাংলাদেশের ঘূর্ণিঝড় সর্বকালের ভয়ংকর প্রাণঘাতী: জাতিসংঘ

0
4

bhola_cyclone-1_47485_1495117439নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের ভোলার ১৯৭০ সালের ঘূর্ণিঝড়কে বিশ্বের সর্বকালের ভয়ংকর প্রাণঘাতী ঝড় ঘোষণা করেছে  জাতিসংঘ।

এছাড়া মানিকগঞ্জের ১৯৮৯ সালের টর্নেডোকে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহতম প্রাণঘাতী টর্নেডো বলে ঘোষণা করেছে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা (ডব্লিউএমও) বিশ্বের পাঁচ ধরনের ভয়াবহ প্রাণঘাতী আবহাওয়া ঘটনার শীর্ষ তালিকা প্রকাশ করে।

তালিকার শীর্ষ দুটি প্রাণঘাতী ঘটনা হিসেবে ভোলা ও মানিকগঞ্জের ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, ১৯৭০ সালের ১২-১৩ নভেম্বর বাংলাদেশের (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) ভোলায় সর্বকালের প্রাণঘাতী ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। এতে তিন থেকে পাঁচ লাখ মানুষ মারা যান।

সবচেয়ে ভয়ংকর টর্নেডো সম্পর্কে বলা হয়েছে, ১৯৮৯ সালের ২৬ এপ্রিল রাজধানী ঢাকার পশ্চিমে অবস্থিত মানিকগঞ্জে টর্নেডো আঘাত হানে। এতে ১৩০০ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে ডব্লিউএমওর প্রতিবেদনে আনুমানিক হিসাব দেয়া হয়েছে।

এদিকে সবচেয়ে প্রাণঘাতী শিলাবৃষ্টিও ভারতীয় উপমহাদেশে ঘটেছে বলে ডব্লিউএমওর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। এটি ঘটে ১৮৮৮ সালের ৩০ এপ্রিল ভারতের মুরাদাবাদে। এতে ২৪৬ জনের মৃত্যু ঘটে।

সবচেয়ে ভয়ংকর বজ্রপাতের ঘটনা ঘটেছে মিশরের ড্রোনকায়। ১৯৯৪ সালের ২ নভেম্বরে একটি তেল ট্যাংকে বজ্রপাত ঘটলে ৪৬৯ জন মারা যান।

এদিকে সরাসরি বজ্রপাতে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটে রোডেশিয়ার পূর্বাঞ্চলে (বর্তমান জিম্বাবুয়ে)। ১৯৭৫ সালের ২৩ ডিসেম্বর এক বজ্রপাতের আঘাতে ২১ জনের প্রাণহানির এ ঘটনা ঘটে।

ডব্লিউএমওর এ প্রতিবেদন থেকে দেখা যায়, বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ প্রাণঘাতী প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনা ঘটেছে আগের শতাব্দীতে। একুশ শতকে আবহাওয়া জনিত কারণে প্রাণহানির সংখ্যা বেশ কমে এসেছে।

আবহাওয়া ঝুঁকির পূর্বাভাসের সতর্কতা উন্নত করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরার জন্য সর্বকালের প্রাণঘাতী আবহাওয়া ঘটনাগুলোর এ চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের সংস্থাটি।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY