বহু নাটকীয়তার পর দেশে ফিরলেন হারিরি

0
93

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: পদত্যাগের ঘোষণা দেয়ার দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় পর দেশে ফিরেছেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি।

দেশত্যাগের ১৮ দিনের মাথায় মঙ্গলবার রাতে রাজধানী বৈরুতের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার।

এর আগে গত ৪ নভেম্বর সৌদি আরব সফরে গিয়ে এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি পদত্যাগের কথা ঘোষণা দিয়েছিলেন।

হারিরি পদত্যাগের ঘোষণা দিলেও তা গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট মাইকেল আউন। তিনি জানান, যতক্ষণ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হারিরি প্রেসিডেন্টের কাছে উপস্থিত না হন, ততক্ষণ তা গ্রহণ করা হবে না।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর উদ্যোগেই সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ থেকে প্যারিসে উড়ে যান হারিরি। এর মধ্য দিয়েই সংকটের জট খোলা শুরু হয়।

সেখান থেকে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই আমি বৈরুতে যাব। আমি স্বাধীনতা উদযাপনে অংশ নেব। সেখানে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকের পর লেবাননের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে নিজের অবস্থান খোলাসা করব।

আজ বুধবার লেবাননের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের জন্য দেশে ফেরত যাওয়ার কথা আগেই হারিরি জানিয়েছিলেন।

সৌদি আরবের বিরুদ্ধে তাকে অপহরণ করার অভিযোগ এনেছিল তার দেশ। রাজনীতি বিশ্লেষকরাও তার পদত্যাগের নেপথ্যে সৌদি চাপকেই কারণ মনে করেন।

মঙ্গলবার রাতে ব্যক্তিগত বিমানে তিনি বৈরুত বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। সেই সময় লেবাননের পদস্থ সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তারা তাকে স্বাগত জানান। এর আগে তিনি সাইপ্রাসে সংক্ষিপ্ত যাত্রাবিরতি করে দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোস অ্যানাসতাসিয়াদসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
গত ৪ নভেম্বর সৌদি আরব সফরে গিয়ে হঠাৎ করেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন সাদ হারিরি। পদত্যাগের কারণ হিসেবে প্রাণভয়ের কথা উল্লেখ করেন তিনি। এ জন্য দায়ী করেন ইরান ও হিজবুল্লাহকে।

পদত্যাগের কথা ঘোষণা করার পর টানা দুই সপ্তাহ রিয়াদে অবস্থান করেন হারিরি। এর পর গত শনিবার তিনি রিয়াদ থেকে প্যারিসে যান এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here