বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে অনেকে দোকান খুলে বসেছেন: কাদের

0
54
005_279164সিলেট ব্যুরো: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘অনেকেই বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে দোকান খুলে বসে আছেন। সিলেট আসার পথে দেখলাম ডিজিটাল লীগ নামে ব্যানার। এই লীগ, সেই লীগ- কত যে লীগ গঠন করেছে সুবিধাভোগীরা। এখন শুনছি হাইব্রিড লীগও গঠন করা হয়েছে। এসব অপকর্ম আর চলবে না।’

এদের ধরে পুলিশে দিতে দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

বুধবার দুপুরে নগরীর ঐতিহ্যবাহী আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সিলেট বিভাগীয় তৃণমূল প্রতিনিধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এ সব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সামনে নির্বাচন। কথা কম, কাজ বেশি। শক্তিশালী দল নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে চাই এবং বিজয়ী হতে চাই।’

বিএনপিকে নিয়ে বিচলিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তারা নির্বাচনে ব্যর্থ, আন্দোলনেও ব্যর্থ। মানুষ পুড়িয়ে এখন আর মানুষ পায় না। তাদের আন্দোলনের মরা গাঙে আর জোয়ার আসবে না। বিএনপি এখন নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলকে ঐক্যবদ্ধ ও গতিশীল করতে দীর্ঘ ১৫ বছর পর সিলেটে তৃণমূল প্রতিনিধি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগে কোনো গডফাদার আর পেশাহীন পেশাজীবীদের দরকার নেই।’

নির্বাচনের আর মাত্র দেড় বছর বাকি আছে স্মরণ করে দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘গডফাদার পেশাহীন পেশাজীবীরা তাদের পেশিশক্তি দিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে দলকে বিব্রত করছে। আওয়ামী লীগে তাদের দরকার নেই। ঘরের মধ্যে ঘর, মশারির মধ্যে মশারি টানানো চলবে না।’

দলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিগুলো দ্রুত পুনর্গঠনের নির্দেশ দিয়ে স্থানীয় নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বছরের পর বছর জমিদারদের মতো পদ নিয়ে বসে থাকা চলবে না। সম্মেলন করে কমিটি গঠন করুন। কোনো অবস্থায় পকেট কমিটি মেনে নেওয়া হবে না।’

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে সবশেষে বক্তৃতা দেওয়ার কথা থাকলেও ওবায়দুর কাদের অর্থমন্ত্রী ও দলের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আবুল মাল আবদুল মুহিতকে সবশেষে বক্তৃতা করার অনুরোধ করেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, ‘আজকের এই সমাবেশ নির্বাচনের প্রস্তুতি জন্য বার্তা। এজন্য দলকে সংগঠিত করতে হবে।’

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ, কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট মহানগর সভাপতি সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here