বঙ্গবন্ধুর ‘কারাগারের রোজনামচা’ বাজারে, ব্যাপক সাড়া

0
118
banga-bandhur-karagarer-roj_277961নিউজ ডেস্ক: প্রথম দিনেই বিক্রি হয়ে গেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় গ্রন্থ ‘কারাগারের রোজনামচার’ পাঁচ শতাধিক কপি। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে শুক্রবার বইটি বিক্রি শুরুর পর আশাতীত সাড়া পেয়েছে প্রকাশক বাংলা একাডেমি।

বইটি কিনতে শুক্রবার সকাল থেকেই একাডেমির বিক্রয় কেন্দ্রে ভিড় জমান বিভিন্ন বয়সের পাঠক-ক্রেতা। তবে কোনো ক্রেতার কাছেই একটির বেশি ‘কারাগারের রোজনামচা’ বিক্রি করা হয়নি।

বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বইটি সর্বস্তরে ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই কারও কাছে একটির বেশি বই দেওয়া হচ্ছে না।

বইটি কিনতে এসেছিলেন গণমাধ্যমকর্মী মুহম্মদ আকবর। তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ পাঠ করেছি বহুবার। ‘কারাগারের রোজনামচা’ ছাপা হওয়ার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এটি সংগ্রহ করতে চলে এসেছি। আমার ইচ্ছা ছিল পাঁচ কপি বই কেনার, কিন্তু নিয়মের কারণে পারলাম না।”

একাডেমির বিক্রয় কেন্দ্রের সামনেই বইটি খুলে পড়ছিলেন এক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আশিকুর রহমান। তিনি সমকালকে বলেন, “বঙ্গবন্ধুর জীবনের প্রায় ১৩টি বছর কারাগারে কেটেছে। তার কারাজীবনের স্মৃতিকথায় নিশ্চয় আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনের রূপরেখার অনেক তথ্য পাওয়া যাবে। এর আগে ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ পড়েও মুগ্ধ হয়েছিলাম। নতুন বই হাতে নিয়ে প্রথমেই ভূমিকাটি পড়েছি। আশা করছি, রাতের মধ্যেই বইটি শেষ করে ফেলব।”

বাংলা একাডেমি জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে দেড় হাজার বই ক্রেতাদের জন্য একাডেমির বিক্রয় কেন্দ্রে দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সাড়ে ৭শ’ বই চলে এসেছে। বাকি সাড়ে সাতশ’ বই রোববার দিন বিক্রয় কেন্দ্রে চলে আসবে। পুনর্মূল্যায়নের পর প্রথম মুদ্রণের বাকি ১০ হাজার কপি বই ছাপা হবে।’

একাডেমির বিক্রয়, বিপণন ও পুনর্মুদ্রণ বিভাগের পরিচালক ড. জালাল আহমেদ সমকালকে বলেন, “বঙ্গবন্ধুর ‘কারাগারের রোজনামচা’ প্রকাশ করা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। আমরা জানি, বইটি নিয়ে পাঠক মহলে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে। তাই আমরা জাতির পিতার জন্মদিনে বইটি বিক্রয় কেন্দ্রে দিয়েছি। তবে কোনো পাঠককেই এক কপির বেশি বই দেওয়া হচ্ছে না। কারণ আমরা চাই বইটি সবার হাতে ছড়িয়ে পড়ুক। বইটি প্রধানমন্ত্রীসহ বিশিষ্টজনরা পড়ে দেখছেন। কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলে তা সংশোধন করে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই বইটির ১০ হাজার কপি ছাপানো হবে।”

‘কারাগারের রোজনামচা’ বইয়ে বঙ্গবন্ধুর ১৯৬৬-৬৮ কালপর্বের কারাস্মৃৃতি স্থান পেয়েছে। ইতোপূর্বে প্রকাশিত ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ থেকে পুরোপুরি আলাদা ও এ গ্রন্থের ভূমিকা লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৬৯ সালে বঙ্গবন্ধুকে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়ার সময় তৎকালীন পাকিস্তান সরকার কারাগারে লেখা তার দুটো ডায়েরি জব্দ করে। ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে ও পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) সহায়তায় ডায়েরি দুটি উদ্ধার করা হয়। ওই ডায়েরির একটির গ্রন্থরূপ বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত ‘কারাগারের রোজনামচা’।

৩৩২ পৃষ্ঠার এ বইটির মূল্য চারশ’ টাকা। ৩০ শতাংশ কমিশনে বইটি পাওয়া যাচ্ছে ২৮০ টাকায়। শিল্পী রাসেল কান্তি দাশ অঙ্কিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি অবলম্বনে এ বইয়ের প্রচ্ছদ ও নকশা করেছেন তারিক সুজাত।