ফ্রান্সে পার্লামেন্ট নির্বাচন, ম্যাক্রোঁর দলে অর্ধেক প্রার্থীই নারী

0
180

emanuel-macron_46991_1494626323বেশির ভাগ প্রার্থীই রাজনীতিতে নবীন এবং সুশীলসমাজের প্রতিনিধি

প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর এবার আসন্ন পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয়ের জন্য জোর প্রস্তুতি শুরু করেছেন ফ্রান্সের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। এজন্য পার্লামেন্টের ৫৭৭ আসনের বিপরীতে এখন পর্যন্ত ৪২৮টি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে তার উদারপন্থী রাজনৈতিক দল লা রিপাবলিক এন মার্চ। এ প্রার্থী তালিকার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে, ম্যাক্রোঁর দলের এই প্রার্থীদের অর্ধেকই নারী এবং এদের ৫২ শতাংশই নতুন মুখ।

সিএনএন জানায়, সমতার ভিত্তিতে এবং প্রচলিত রাজনীতির বাইরে থেকে আসা ব্যক্তিদের সমন্বয়ে ফরাসি পার্লামেন্ট গড়তে চান ম্যাক্রোঁ। বর্ষীয়ান রাজনীতিকদের বদলে গুরুত্ব দিচ্ছেন বয়সে তরুণ ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তিসম্পন্ন ব্যক্তিদের।

পার্লামেন্ট প্রার্থীদের তালিকায় বর্তমান এমপিদের মধ্য থেকে জায়গা পেয়েছেন মাত্র ২৪ জন। তারা সবাই বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলান্দের সোসালিস্ট পার্টির হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন। তালিকার ৫২ শতাংশই সুশীলসমাজের প্রতিনিধি। এদের মধ্যে রয়েছেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী, গবেষক, আইনজীবী, পুলিশ, উন্নয়নকর্মীসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ। তাদের অধিকাংশেরই রাজনীতিতে কোনো অভিজ্ঞতা নেই। ৩৯ বছর বয়সী ম্যাক্রোঁ ফ্রান্সের সবচেয়ে কম বয়সী প্রেসিডেন্ট হিসেবে আগামী রোববার শপথ নেবেন। ফ্রান্সের রাজনীতিতে তিনি নতুন জীবন ফিরিয়ে আনার এবং একই সঙ্গে তার দেশের মন্থর অর্থনীতিকে গতিশীল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

তিনি এখন তার এই নির্বাচনী এজেন্ডা বাস্তবায়নে পার্লামেন্টে নিজ দল লা রিপাবলিক এন মার্চের শক্তিশালী উপস্থিতি দেখতে চাচ্ছেন। তাই তার দলের মনোনয়নের তালিকায় দেখা যাচ্ছে তরুণদের প্রাধান্য। প্রার্থীদের গড় বয়স ৪৬। সবচেয়ে কম বয়সী প্রার্থীর বয়স মাত্র ২৪ বছর। আর সবচেয়ে বয়োজ্যেষ্ঠ প্রার্থীর বয়স ৭২ বছর। দেশটিতে বর্তমান পার্লামেন্ট সদস্যদের গড় বয়স ৬০ বছর।

লা রিপাবলিক এন মার্চের সেক্রেটারি রিচার্ড ফেরার্ড বৃহস্পতিবার ঘোষণা করে বলেন, দলকে সামনের দিকে নিয়ে যেতে ২১৪ জন পুরুষ ও ২১৪ জন নারী প্রার্থী বাছাই করা হয়েছে এবং এদের ৫২ শতাংশই আগে কখনও কোনো নির্বাচনে অংশ নেননি। গত জানুয়ারিতে করা দলটির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘রাজনীতির মাঠে জনগণের প্রতিনিধিত্ব ফিরিয়ে আনার জন্যই আমরা কাজ করছি। আর এ কারণেই রাজনীতির বাইরে থেকে আসা ব্যক্তিদের মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে। প্রাধান্য দেয়া হয়েছে স্বচ্ছ ভাবমূর্তিসম্পন্ন ব্যক্তিদের।’

এখনও ১০০টির বেশি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করা বাকি আছে নতুন এ রাজনৈতিক দলটির। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বাকি আসনগুলোর প্রার্থী বাছাই সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ফরাসি রাজনীতিকদের জন্য অন্য যে কোনো দল ছেড়ে এ দলে যোগ দেয়ার রাস্তা খোলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আসন্ন পার্লামেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নতুন এ দলটি জনগণের কাছ থেকে প্রার্থিতা চায়। ঘোষণা অনুযায়ী, ফরাসি নাগরিকদের যে কেউ প্রার্থী হতে আবেদন করতে পারতেন। প্রায় ১৯ হাজার আবেদন জমা পড়ে। সেখান থেকে যাচাই-বাছাই করে এক হাজার ৭০০ জনের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়। পরে তালিকাভুক্তদের টেলিফোনে সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। এর ভিত্তিতেই এখন প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here