প্রিমিয়ার লিগ শেষে এইচপি ক্যাম্প

0
356

Imageস্পোর্টস ডেস্ক: রিচার্ড ম্যাকিন্সের তত্ত্বাবধানে ২০০৪ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত হাই-পারফরম্যান্স (এইচপি) ইউনিটের কার্যক্রম পরিচালিত হয় বাংলাদেশে। ওই ক্যাম্প থেকে বাংলাদেশ সাকিব-মুশফিকদের মতো বিশ্বমানের তারকা ক্রিকেটার পায়। কিন্তু ২০০৭ সালের পর বন্ধ হয়ে যায় এই কার্যক্রম।

নতুন করে প্রয়োজনীয়তা অনুভব করায় নতুন কাঠামোতে গেল বছরের জুনের প্রথম সপ্তাহে শুরু হয় ফের হাই-পারফরম্যান্স ইউনিটের কার্যক্রম। চলতি বছরের ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ শেষে আবারও শুরু হবে এইচপি’র এবারের কার্যক্রম।

মঙ্গলবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে রবির সঙ্গে কৌশলগত চুক্তি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসবি) সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহবুব আনাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সম্প্রতি রবি ফাস্ট বোলিং হান্ট ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ১২ জন ছেলে ও তিনজন মেয়ে ফাস্ট বোলার বাছাই করেছে। এই ১৫ ফাস্ট বোলার নিয়েই শুরু হবে এইচপি’র পরবর্তী কার্যক্রম।

বললেন, ‘সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ফাস্ট বোলিং হান্টের বাছাইকৃত খেলোয়াড়দের প্রতি মাসে তাদের একটি করে স্কলারশিপ দিচ্ছে রবি। প্রিমিয়ার লিগ শুরু হওয়ার আগে যারা ফাস্ট বোলিং হান্টে ছিল; তাদের আমরা দুই সপ্তাহের ট্রেনিং করিয়েছি। তাদের থেকে প্রায় ছয়জন খেলোয়াড় এবার লিগ খেলছে। এটা থেমে নেই, প্রক্রিয়াধীন। প্রিমিয়ার লিগ শেষ হওয়ার পর এইচপি ক্যাম্প শুরু হবে। ওখানে তারা আরও ট্রেনিং করার সুযোগ পাবে।’

জানিয়ে রাখা ভালো, হাইপারফরম্যান্স ইউনিটে সুযোগ পাবেন বিসিবি অ্যাকাডেমি, অনূর্ধ্ব-১৯ দল, প্রতিভাবান তরুণ ক্রিকেটার ও জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া ক্রিকেটাররা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here