প্রধানমন্ত্রী রাজশাহী যাচ্ছেন বৃহস্পতিবার

0
49

ঢাকা: আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দিতে আগামী বৃহস্পতিবার রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পবা উপজেলার হরিয়ানে সুগার মাঠে আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দেবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে প্রচারণায় এখন সরগরম রাজশাহী। মহানগরী ছাড়াও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় চলছে প্রচার মিছিল, বর্ধিত সভা, মতবিনিময় ও মাইকিং। এ ছাড়াও জনসভা সফল করার আহবান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পথঘাট ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে উদ্দীপনা। কেবল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরাই নন, সাধারণ মানুষের মধ্যে উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীকে একনজর দেখা ও তার ভাষণ শোনার জন্য খোঁজখবর নিচ্ছেন অনেকেই। রাজশাহীর মানুষের আশা, বঙ্গবন্ধুকন্যা এবার অবহেলিত এ অঞ্চলের উন্নয়নে আরো বেশি পদক্ষেপ নেবেন। অনেকেই আবার এটিকে নির্বাচনমুখী জনসভাও মনে করছেন।

প্রধানমন্ত্রীর রাজশাহী সফর সফল করতে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিট পৃথকভাবে নানা কর্মসূচি পালন করছে। উপজেলা পৌরসভা ও ইউনিয়ন পর্যায়েও  চলছে প্রচার। এবারের জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত করতে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগ। জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সব নেতা এখন মাঠে নেমেছেন একযোগে। প্রায় প্রতিদিনই কেন্দ্রীয় কোনো না কোনো নেতা আসছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বর্ধিত সভা করছেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে রাজশাহীবাসী নিরাপদ, উন্নত ও শিল্পভিত্তিক আধুনিক রাজশাহী বিনির্মাণের পথ  খুলে যাবে বলে আশা করছেন সবাই।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজ শেষ হলে এই এলাকার শিক্ষিত মেধাবী ও বেকার জনগোষ্ঠীর মাঝে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগ সম্প্রসারিত করবে প্রধানমন্ত্রীর এই সফর। এছাড়া রাজশাহীর হযরত শাহ মুখদুম বিমানবন্দরকে সব ধরনের সেবা উপযোগী আধুনিক ও আন্তর্জাতিকমানের বিমানবন্দরে রূপান্তরে যাবতীয় উদ্যোগের প্রত্যাশা রয়েছে এ অঞ্চলের মানুষের।

রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন বলেন, রাজশাহীতে বিশেষ করে জেলার পবা উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর প্রথমবারের সফরে অনেক প্রত্যাশা রয়েছে। রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী দুটি কৃষিশিল্প আম ও রেশম। এই দুটি ঐতিহ্যবাহী কৃষিপণ্যের চাষাবাদ উন্নতকরণ ও কৃষকের মাঝে ন্যায্যমূল্য এবং উৎসাহ-উদ্দীপনা ফিরিয়ে দিতে কৃষিভিত্তিক শিল্প প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানানো হবে।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষের মধ্যে জোয়ার বইছে। জেলার প্রতিটি পৌরসভা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এখন উজ্জীবিত। নেতাকর্মীদের এ জোয়ার আগামী সিটি ও জাতীয় নির্বাচনে প্রাণশক্তি যোগাবে।

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজে অংশ নেবেন এবং অভিবাদন গ্রহণ করবেন। একই দিন বিকালে তিনি চিনিকল মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ভাষণ দেবেন।