পূজার টাকা থেকে রোহিঙ্গাদের সহায়তা করা হবে

0
68

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার পূজা উদযাপনে দেড় কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন জানিয়ে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা বলেছেন, এবার  উৎসবের আয়োজনকে কিছুটা সংক্ষিপ্ত করে সারা দেশের আর্থিক দিক থেকে দুর্বল পূজামণ্ডপগুলোতে সাহায্য করা হবে।

এছাড়া বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্য করা হবে। এরই মধ্যে রোহিঙ্গাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করছেন বিভিন্ন কমিটির সদস্যরা। কেন্দ্রীয়ভাবেও ত্রাণ দেয়া হচ্ছে।

শুক্রবার দুপুরে  রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে আয়োজিত সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তারা।

এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাপসকুমার পাল।

তিনি বলেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজন প্রতিনিয়ত কমছে। ফলে কমছে পূজারির সংখ্যা।

সভায় বক্তারা দাবি জানান, শারদীয়া দুর্গা উৎসবকে আরও মর্যাদা দানের জন্য বঙ্গভবন, গণভবন, নগরভবন ও জেলা পর্যায়ের সরকারি ভবনগুলোতে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা নেয়া জরুরি।

পরিষদ থেকে দীর্ঘদিন ধরে এ বিষয়গুলো যথাযথভাবে করার জন্য দাবি জানিয়ে এলেও কিছুই হচ্ছে না। একইসঙ্গে পূজা উপলক্ষে তিন দিন সরকারি ছুটির দাবি তোলা হলেও কার্যকরী কোনো ব্যবস্থা নেয়নি সরকার।

পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে এবার ৩০ হাজার ৭৭টি মণ্ডপে পূজা হচ্ছে। গতবার এই সংখ্যা ছিল ২৯ হাজার ৩৯৫। কিন্তু পূজার মণ্ডপ বাড়লেও নিরাপত্তা বাড়েনি। হিন্দুদের আতংক কমেনি। যার ফলে বাংলাদেশে পূজারির সংখ্যা কমে যাচ্ছে।

আরও জানানো হয়, ১৯৫১ সালে বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ২২ শতাংশ হিন্দু ছিল। ১৯৭৪ সালে কমে তা ১৪ শতাংশে এবং ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী দেশে হিন্দু জনসংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৪ শতাংশে।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সভাপতি জয়ন্ত সেন দীপু, উপদেষ্টা কাজল দেবনাথ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্মলকুমার চ্যাটার্জি, মহানগর পূজা কমিটির সভাপতি ডি এন চ্যাটার্জি, সাধারণ সম্পাদক শ্যামলকুমার রায়, পূজা উদযাপন পরিষদের নেত্রী সাবিত্রী ভট্টাচার্য, সিনিয়র সাংবাদিক স্বপনকুমার সাহা প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here