পুরনো সংলাপ আওড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

0
33

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপে যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বানের তীব্র সমালোচনা করেছে পিয়ংইয়ং। দেশটি অভিযোগ করেছে, পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে তাদের সদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও এখনও ‘পুরনো চিত্রনাট্য আর সংলাপ আওড়াচ্ছে’ ওয়াশিংটন। পুরনো চিত্রনাট্য বলতে ওয়াশিংটনের অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের পুরনো নীতিকে বুঝিয়েছে পিয়ংইয়ং।

এদিকে আগামী রোববার উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে শীর্ষ পর্যায়ের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ বৈঠকের মধ্য দিয়ে দক্ষিণের প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের পিয়ংইয়ং সফরের তারিখ ঘোষণা করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত ১২ জুন সিঙ্গাপুরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠককালে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ও কোরীয় উপদ্বীপের শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দু’মাসের মধ্যে কয়েকটি পরমাণু স্থাপনাও বন্ধ করে দিয়েছে তার দেশ। তবে পিয়ংইয়ং পরমাণু কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে- এই অভিযোগে নতুন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। একইসঙ্গে মিত্র দেশগুলোকেও তা অনুসরণের আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, পিয়ংইয়ং পরমাণু অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করেছে, একটি পরীক্ষা কেন্দ্র ধ্বংস করেছে এবং ১৯৫০-৫৩ সালে কোরীয় যুদ্ধে নিহত কিছু মার্কিন সেনার দেহাবশেষও ফেরত দিয়েছে।

এর পরও ওয়াশিংটন নিরস্ত্রীকরণের ব্যাপারে চাপ প্রয়োগ করছে এবং ‘আমাদের ওপরে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা ও চাপ উসকে দিচ্ছে।’ বিবৃতিতে আরও বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রশাসন অভিনয়ের পুরনো চিত্রনাট্য অনুসরণ করেছে যেটি আগের সব প্রশাসন করে ব্যর্থ হয়েছে। এটা অব্যাহত রাখলে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে দেয়া যৌথ বিবৃতি বাস্তবায়নে অগ্রগতির আশা করা অনুচিত হবে’।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের সঙ্গে কিম জং উনের বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো এখনও বাস্তবায়নের আশা রাখে পিয়ংইয়ং। দু’দেশের সম্পর্ক কিছুটা স্বাভাবিক হলেও উত্তর কোরিয়ার ওপর কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক চাপ অব্যাহত রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। এ জন্য গত মাসে উত্তর কোরিয়া জানায়, যুক্তরাষ্ট্র গ্যাংস্টারের মতো আচরণ করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here