পিয়ংইয়ংয়ের দাবি, আবহাওয়া নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন কিম উন!

0
52

উত্তর কোরিয়ার কারাগারের অবস্থা নাৎসি ক্যাম্পের চেয়ে ভয়াবহ * কারাগুলোয় বন্দিদের লাশ কুকুরকে খাওয়ানো হয়

উত্তর কোরিয়া দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন ও তার পরিবারের ক্ষমতার ব্যাপারে এ যাবৎ বহু অবিশ্বাস্য দাবি করেছে। এবার তারা সবচেয়ে বড় দাবিটা করে বসেছে। দেশটির দাবি, কিম আবহাওয়া নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। চীন ও উত্তর কোরিয়ার সীমান্তবর্তী মাউন্ট পেক্তু নামে একটি পাহাড়ের চূড়ায় কিমের একটি ছবি প্রকাশ করে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ এ দাবি করে।

প্রকাশিত ওই ছবিতে দেখা যায়, হাস্যোজ্জ্বল কিম একটি কালো রঙের শীতের কোট পরে ৯ হাজার ২২ ফুট বা দুই হাজার ৭৭৪ মিটার উঁচু এই পাহাড়ে চড়ছেন। কেসিএনএ দাবি করেছে, ‘কিম প্রকৃতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। কেননা যখন কিম জং উন এই পাহাড়ের ঘন বরফের আস্তরণ পেরিয়ে চূড়ায় ওঠেন, সেখানে তুষার সরে গিয়ে একটি অভূতপূর্ব চমৎকার আবহাওয়া বিরাজ করতে থাকে। কিমকে স্বাগত এবং এই পাহাড়ের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করার জন্যই সেখানকার আবহাওয়া পরিবর্তিত হয়ে এমন চমৎকার রূপ নেয়।’ খবর ইউএসএটুডের।

এদিকে একটি মানবাধিকার সংস্থা অভিযোগ করেছে, উত্তর কোরিয়ার ওপর একটি বর্বর শাসন চাপিয়ে দিয়েছে কিমের সরকার। দেশটিতে কিম যে কারাগারগুলো পরিচালনা করেন, সেগুলোর অবস্থা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালের জার্মানির নাৎসি কনসেনট্রেশন ক্যাম্পগুলোর চেয়েও ভয়াবহ। কিমের সরকারের মানবাধিকার লঙ্ঘন নিয়ে তদন্তকারী একটি দল এ কথা জানিয়েছে।

ইন্টারন্যাশনাল বার অ্যাসোসিয়েশনের ওই তদন্ত কমিটির অন্যতম সদস্য টমাস বোর্গেনথল বলেন, ক্ষমতা আঁকড়ে থাকা ও ত্রাস সৃষ্টি করার জন্য কিমের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা উচিত। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, উত্তর কোরিয়ার কারাগারগুলোর অবস্থা ভয়াবহ এবং আমি আমার যৌবনে নাৎসি বন্দি শিবিরে যেমনটা প্রত্যক্ষ করেছি তার চেয়েও খারাপ।

সোমবার ওয়াশিংটন পোস্টকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ সব কথা বলেন। তদন্ত কমিটির অন্য দুই সদস্য হচ্ছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতিনিধি নাভি পিল্লাই ও এক মার্কিন বিচারক মার্ক হার্মন। মার্ক হার্মন এর আগে যুগোস্লাভিয়া ও কম্বোডিয়ায় যুদ্ধাপরাধ নিয়ে কাজ করেন।

এদিকে উত্তর কোরিয়া থেকে পালিয়ে আসা এক বন্দি বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নারী বন্দিদের জোর করে গর্ভপাত করানো হয়। এ ছাড়া মৃত বন্দিদের লাশ কারাগারের পোষা কুকুরগুলোকে খাওয়ানো হয়। তাকেও জোর করে গর্ভপাত করানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY