পরাজয়ের ‘খল নায়ক’ রুবেল

0
453

স্পোর্টস ডেস্ক: তীরে গিতে তরী ডুবল বাংলাদেশের। শেষ দুই ওভারে পরিকল্পিত বোলিং করতে না পারায় ত্রিদেশীয় সিরজের ট্রফি জয় অধরাই থেকে গেল বাংলাদেশের।

রোববার নিদাহাস ট্রফির ফাইনালের শেষ দুই ওভারে ভারতের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩৪ রান। তখন এক ধরণের বিজয় উল্লাসের প্রস্তুতি নিয়েছিল বাংলাদেশ সমর্থকরা। কিন্তু রুবেল হোসেন ১৯তম ওভারে ২২ রান দিলে ম্যাচ হেলে যায় ভারতের দিকে। স্বপ্ন ভেঙ্গে যায় বাংলাদেশের।

অথচ এই রুবেল হোসেনই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশকে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে কোয়াটার ফাইনালে তুলে দিয়েছিলেন। সেই ম্যাচে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের দরকার শেষ ১২ বলে ১৬ রান। হাতে দুই উইকেট। এমন উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে অসাধারণ বোলিং করে দলকে ঐতিহাসিক এক জয় উপহার দিয়েছিলেন রুবেল।

সেই রুবেলই আজ রোববার কলম্বোয় হতাশ করলেন দেশের ক্রিকেটপ্রেমী মানুষদের। রোববার ভারতের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে পরাজয়ের পর তাকেই দোষছেন দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

এদিন শেষ ওভারে ভারতের দরকার ছিল ১২ রান। এমন অবস্থায়ও ভালো বোলিং করেছেন সৌম্য সরকার। ওভারের প্রথম ৫ বলে সৌম্য খরচ করেন ৭ রান। জয়ের জন্য ভারতের শেষ বলে প্রয়োজন ৫ রান। সে সময়ও জয়ের স্বপ্ন ছিলো বাংলাদেশের। কিন্তু দিনেশ কার্তিক ছক্কা হাঁকিয়ে বাংলাদেশর স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেন। মাত্র ৮ বলে ৩ ছয় এবং ২ চারে সাহায্যে অপরাজিত ২৯ রান করে ভারতকে জয় উপহার দেন দিনেশ কার্তিক।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল খেলায় আগে ব্যাট করে সাব্বির রহমান রুম্মনের ৭৭ রানে ভর করে ১৬৬ রান করে বাংলাদেশ। টার্গেট তাড়া করতে নেমে অধিনায়ক রোহিত শর্মার ৫৬ এবং দিনেশ কার্তিক ও পান্ডিয়ার ২৯ ও ২৮ রানে ভর করে ৪ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৬৬/৮ রান (সাব্বির ৭৭, মাহমুদউল্লাহ ২১, মিরাজ ১৯; চাহাল ৩/১৮, উনাদখত ২/৩৩)।

ভারত: ২০ ওভারে ১৬৮/৬ রান (রোহিত ৫৬, দিনেশ কার্তিক ২৯*, পান্ডিয়া ২৮)।

ভারত: ৪ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: দিনেশ কার্তিক (ভারত)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here