নতুন কোচের জন্য আরও কিছুদিন অপেক্ষা

0
17

স্পোর্টস ডেস্ক: রিচার্ড পাইবাস গত সপ্তাহে বিসিবির কাছে কোচ হওয়ার জন্য সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন। রোববার নিজের পরিকল্পনা উপস্থাপন করেছেন আরেক প্রার্থী ফিল সিমন্স। তাদের মধ্য থেকে একজনকে নিয়োগের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত প্রায় নিয়েই ফেলেছিল বিসিবি। কিন্তু রোববারই বড় নামের দু’জন কোচ

বিসিবির কাছে আবেদন করেছেন। এ কারণে প্রধান কোচ নিয়োগের ব্যাপারে রোববারের সভায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বিসিবি। এই কমিটির প্রথম সভায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। রোববার দ্বিতীয় সভায় পরিচালকদের পদ বণ্টন করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ পদ ক্রিকেট অপারেশন্সে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। তবে অধিকাংশ পদেই পরিবর্তন এসেছে। এছাড়া এই সভায় মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো টেস্ট দলের অধিনায়ক করা হয়েছে সাকিব আল হাসানকে।

রোববার বোর্ড সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান নতুন কোচ নিয়োগ প্রসঙ্গে জানান, ‘রিচার্ড পাইবাস সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন আগে, আজ (রোববার) ফিল সিমন্স তার পরিকল্পনা উপস্থাপন করেছেন। সবচেয়ে আশ্চর্য ব্যাপার যে, আজকেও (রোববার) দুটি বায়োডাটা এসেছে। তারা আগ্রহ দেখিয়েছে এবং তারা ভালো কোচ। গত শনিবারও দুটি বায়োডাটা পেয়েছি। কাজেই আমরা সাড়া পাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘কারও ক্ষেত্রে পারিশ্রমিক নিয়ে আবার কারও ক্ষেত্রে সময়ের সঙ্গে মিলছে না। এই জিনিসগুলো বিবেচনা করে আমরা খুবই ছোট একটা তালিকা করেছি। একজনের সঙ্গে মোটামুটি সবই ঠিক হয়ে গেছে। তার পারিশ্রমিক এবং কবে যোগ দেবে সেটা যতক্ষণ নিশ্চিত না হবে, ততক্ষণ কিছু চূড়ান্ত করতে পারছি না। এজন্য আমাদের আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে।’

এদিকে শ্রীলংকার বিপক্ষে হোম সিরিজের জন্য বাংলাদেশ দলের ক্যাম্প শুরু হবে ২৭ ডিসেম্বর। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘পরবর্তী সিরিজের আগে আমরা যদি কাউকে কোচ হিসেবে নিশ্চিত করতে না পারি তাহলে এ সিরিজের জন্য কাউকে আমরা প্রধান কোচ করছি না। আমাদের এখন যারা আছেন- রিচার্ড হ্যালসল (সহকারী কোচ), সুনীল যোশী (স্পিন কোচ), কোর্টনি ওয়ালশ (পেস বোলিং কোচ) এবং অধিনায়কদের মধ্যে দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া হবে। সব কিছু দেখার জন্য নির্দিষ্ট একজনকে সুপারভাইজার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘একজন কোচ রয়েছেন বিগ ব্যাশের সঙ্গে। তিনি বিগ ব্যাশ শেষ করে ২৩ ফেব্রুয়ারির দিকে যোগ দিতে চান। এ বিষয়টা নিয়েও আমরা ভেবেছি।’

পরিচালনা কমিটিতে পরিবর্তন নিয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘স্টান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান চূড়ান্ত করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটা জায়গায় বদল হয়েছে। এইচপিতে (হাইপারফরম্যান্স) মাহবুবুল আনাম ছিলেন। এখন এইচপিতে নাঈমুর রহমান দুর্জয় দায়িত্ব পেয়েছেন। বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টে তানজিল চৌধুরী ও কাজি এনাম এসেছেন। সিসিডিএমে কাজি এনাম প্রধান থাকবেন। অপারেশন্স আগের জায়গায় আছে।’

পরিচালনা বিভাগের ওয়ার্কিং কমিটির সভাপতি হয়েছেন এনায়েত হোসেন সিরাজ। এছাড়া ফিন্যান্স কমিটিতে আফজালুর রহমান সিনহা, শৃঙ্খলা কমিটিতে আজম নাসির উদ্দিন, গেম ডেভেলপমেন্টে খালেদ মাহমুদ সুজন, টুর্নামেন্ট কমিটিতে গাজী গোলাম মুর্তজা ও নিরাপত্তা কমিটিতে মঞ্জুর কাদেরকে সভাপতি করা হয়েছে।

এছাড়া ফ্যাসিলিটি ম্যানেজমেন্টে তানজিল আহমেদ, আম্পায়ার্সে সাইফুল আলম স্বপন, মেডিকেলে সায়েদ আশফাক ইসলাম, টেন্ডার ও পার্সেসে অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, মিডিয়া কমিটিতে জালাল ইউনুস, অডিটে শওকত আজিজ রাসেল, মহিলা উইংয়ে শফিউল আলম নাদেল, লজিস্টিক ও প্রোটোকলে ইসমাইল হায়দার মল্লিক এবং মার্কেটিং ও কমার্শিয়াল কমিটির সভাপতি করা হয়েছে শেখ সোহেলকে।

টেস্ট দলের অধিনায়ক পরিবর্তন নিয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমাদের দুটি পরিকল্পনা ছিল আগে। তিন ফরম্যাটে তিন অধিনায়ক আবার তিন ফরম্যাটেই এক অধিনায়ক। এ মুহূর্তে এক অধিনায়ক সম্ভব নয়। কারণ আমাদের ওয়ানডে অধিনায়ক ক্যাপ্টেন মাশরাফি। কাজেই ওখানে হাত দেয়ার প্রশ্নই উঠে না। এখন এটার কোনো দরকারই আমরা দেখছি না। আপাতত দু’জন অধিনায়কই থাকছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here