নজরুল গবেষক অধ্যাপক রাজীব হুমায়ুন আর নেই

0
107

condolence_305459ঢাকা: বিশিষ্ট ভাষাবিজ্ঞানী ও নজরুল গবেষক অধ্যাপক ড. রাজীব হুমায়ুন আর নেই। বুধবার ভোরে রাজধানীর এপোলো হাসপাতালে তার মৃত্যু হয় (ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তিনি দুই ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

প্রয়াতের পারিবারিক সূত্র জানায়, কিডনিসহ নানা জটিলতা নিয়ে গত সাত দিন ধরে তিনি হাসপাতালে ছিলেন।

১৯৫১ সালে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে মৌলভী সৈয়দ আহমদ ও আজমতেন্নেসা বেগম দম্পতির ঘরে জন্ম নেন রাজীব হুমায়ুন। ১৯৭২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতক ও ১৯৭৪ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন রাজীব হুমায়ুন। ১৯৮৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল ও সিনেটেও গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৪ সালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যান।

এর আগে বিভিন্ন সময় তিনি চট্টগ্রাম ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। সত্তরের দশকে সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচীর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনে অনুষ্ঠান করতেন তিনি। লিখেছেন নাটকও। তার উল্লেখযোগ্য প্রকাশনার মধ্যে রয়েছে নজরুল ও বিশ্বসংস্কৃৃতি, নজরুল ইসলাম ও বাংলাদেশের সাহিত্য, নজরুলের লেখার কৌশল, আবুল মনসুর আহমদের ব্যঙ্গ রচনা ও সংস্কৃৃতি চিন্তা, সমাজ ভাষাবিজ্ঞান, সমাজ ও সংস্কৃতি প্রভৃতি। তার টেলিভিশন নাটকের মধ্যে রয়েছে মহাপ্রস্থান, নীলপানিয়া, মাগো তুমি কেমন আছো, ব্রীফকেস, একটি পরিবারের গল্প প্রভৃতি। তার একমাত্র মঞ্চনাটক নীলপানিয়া।

রাজীব হুমায়ুনের মৃত্যুতে এক শোকবার্তায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, অধ্যাপক রাজীব হুমায়ুন শুধু শিক্ষক ছিলেন না; তিনি স্বনামধন্য সংস্কৃতিসেবীও ছিলেন। তিনি মননশীল রচনার পাশাপাশি সৃষ্টিশীল রচনায় সুনাম অর্জন করেছেন।

গতকাল দুপুরে তার কর্মস্থল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জানাজায় উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকরা অংশ নেন। এ ছাড়া বিকেলে মিরপুরের পূর্ব মণিপুরে তার বাসার কাছে আমতলা মসজিদে পৃথক জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

অধ্যাপক রাজীব হুমায়ুনের ছেলে কায়সার রাজীব শেরপা জানান, মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তার বাবাকে সমাহিত করা হবে।বিশিষ্ট ভাষাবিজ্ঞানী ও নজরুল গবেষক অধ্যাপক ড. রাজীব হুমায়ুন আর নেই। বুধবার ভোরে রাজধানীর এপোলো হাসপাতালে তার মৃত্যু হয় (ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তিনি দুই ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। প্রয়াতের পারিবারিক সূত্র জানায়, কিডনিসহ নানা জটিলতা নিয়ে গত সাত দিন ধরে তিনি হাসপাতালে ছিলেন। ১৯৫১ সালে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে মৌলভী সৈয়দ আহমদ ও আজমতেন্নেসা বেগম দম্পতির ঘরে জন্ম নেন রাজীব হুমায়ুন।

১৯৭২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতক ও ১৯৭৪ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন রাজীব হুমায়ুন।

১৯৮৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল ও সিনেটেও গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৪ সালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যান। এর আগে বিভিন্ন সময় তিনি চট্টগ্রাম ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। সত্তরের দশকে সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচীর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনে অনুষ্ঠান করতেন তিনি। লিখেছেন নাটকও। তার উল্লেখযোগ্য প্রকাশনার মধ্যে রয়েছে নজরুল ও বিশ্বসংস্কৃৃতি, নজরুল ইসলাম ও বাংলাদেশের সাহিত্য, নজরুলের লেখার কৌশল, আবুল মনসুর আহমদের ব্যঙ্গ রচনা ও সংস্কৃৃতি চিন্তা, সমাজ ভাষাবিজ্ঞান, সমাজ ও সংস্কৃতি প্রভৃতি। তার টেলিভিশন নাটকের মধ্যে রয়েছে মহাপ্রস্থান, নীলপানিয়া, মাগো তুমি কেমন আছো, ব্রীফকেস, একটি পরিবারের গল্প প্রভৃতি। তার একমাত্র মঞ্চনাটক নীলপানিয়া। রাজীব হুমায়ুনের মৃত্যুতে এক শোকবার্তায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, অধ্যাপক রাজীব হুমায়ুন শুধু শিক্ষক ছিলেন না; তিনি স্বনামধন্য সংস্কৃতিসেবীও ছিলেন। তিনি মননশীল রচনার পাশাপাশি সৃষ্টিশীল রচনায় সুনাম অর্জন করেছেন। গতকাল দুপুরে তার কর্মস্থল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জানাজায় উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকরা অংশ নেন। এ ছাড়া বিকেলে মিরপুরের পূর্ব মণিপুরে তার বাসার কাছে আমতলা মসজিদে পৃথক জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যাপক রাজীব হুমায়ুনের ছেলে কায়সার রাজীব শেরপা জানান, মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তার বাবাকে সমাহিত করা হবে।