‘দ্রুত বিচার নিশ্চিতে জেলা জজদের আরও দায়িত্বশীল হতে হবে’

0
67

ঢাকা: দ্রুত বিচার নিশ্চিতে জেলা জজদের আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা। তিনি বলেছেন, জেলা জজ জেলার বিচারপ্রার্থীদের অভিভাবক। তাকে শুধু বিচারকাজ করলেই হবে না; জেলার বিচার প্রশাসনে শৃঙ্খলা রক্ষায়ও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। এ ছাড়া আদালতের কর্মঘণ্টা পরিপূর্ণভাবে ব্যয় করে মামলাজট কমিয়ে বিচারপ্রার্থীদের হয়রানি ও দুর্ভোগও লাঘব করতে হবে।

রোববার সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে জেলা ও দায়রা জজ বা সমপর্যায়ের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে দেওয়া অভিভাষণে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি এসব কথা বলেন।

দুপুর আড়াইটা থেকে বিকেল পৌনে ৫টা পর্যন্ত এই অনুষ্ঠানে প্রায় দুইশ’ বিচারক উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা জেলা আদালত পরিচালনায় তাদের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সভায় উপস্থিত একাধিক বিচারকের সঙ্গে আলাপে জানা যায়, বিচারকরা তাদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। এ জন্য নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থা নিশ্চিতের জন্য পর্যাপ্ত যানবাহন এবং বাসভবনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করার প্রতি তারা গুরুত্বারোপ করেছেন।

সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে বিচারিক দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়ে জেলা জজদের উদ্দেশে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি বলেন, অধীনদের মধ্যে এমনভাবে মামলা বণ্টন করতে হবে, যাতে বিচারিক সময় বিচারকরা আদালতে কর্মরত থাকতে পারেন। এমন কোনো কাজ করবেন না বা অধীনদের এমন কোনো কাজ করতে দেবেন না, যাতে বিচার বিভাগের সম্মান ক্ষুণু হয়। খেয়াল রাখবেন-আপনারা বিচারক। আপনাদের কোনো কাজ জনমনে প্রশ্নবিদ্ধ হলে সমগ্র বিচার ব্যবস্থার প্রতি ভ্রান্ত ধারণা সৃষ্টি করবে।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া সার্কুলার অনুসরণ করতে হবে। অধীনদের পদোন্নতিদের বিষয়ে এসিআরে (বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন) বিরূপ মন্তব্য প্রদানের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকবেন, যেন ইচ্ছাকৃতভাবে কারও এসিআরে বিরূপ মন্তব্য করা না হয়।

সুপ্রিম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার জেনারেল মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকার সিনিয়র জেলা জজ এসএম কুদ্দুস জামান, রাঙামাটির সিনিয়র জেলা জজ মোহাম্মদ কাওসার, দিনাজপুরের সিনিয়র জেলা জজ হোসেন শহীদ আহমেদ, চট্টগ্রামের জেলা জজ মো. হেলাল চৌধুরী, মুন্সীগঞ্জের জেলা জজ মোহাম্মদ শওকত আলী চৌধুরী, ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. কামরুল হোসেন মোল্লা, চট্টগ্রামের বিভাগীয় বিশেষ জজ মীর রুহুল আমীন, ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক তাবাসুম ইসলাম প্রমুখ।