দুবাই গালফ ফুড এক্সিভিশনে বাংলাদেশের ৪২টি কোম্পানি

0
63

ইউএই: সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে প্রতিবছরের মত এবারও গালফ ফুড এক্সিভিশনে অংশগ্রহণ করেছে বাংলাদেশ। দুবাইয়ের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ৩১৮ বর্গমিটার আয়োতন জুড়ে বাংলাদেশের খাদ্য রপ্তানিকারক ৪২টি প্রতিষ্ঠানের দেখা মিলবে এবার। মেলা চলবে ১৮ থেকে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সার্বিক প্রস্তুতি সম্পর্কে জানাতে শনিবার দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ কন্স্যুলেট দুবাই এর উদ্যোগে কন্স্যুলেটের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই প্রদর্শনীতে পৃথিবীর প্রায় ১৫০টির মত দেশের ক্রেতার সমাগম থাকে। এবারের মেলায় ৪২টি কোম্পানির সু-সজ্জিত প্যাভিলিয়নে নিয়ে বাংলাদেশের স্বনামধন্য খাদ্য রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান সমূহ অংশগ্রহণ করছে। এসব প্রতিষ্ঠান সমূহ বর্তমানে এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা ও আফ্রিকার ১২০ টিরও বেশী দেশে বাংলাদেশ থেকে খাদ্যপণ্য রপ্তানি করে থাকে। এছাড়া বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সাল নাগাদ ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং ২০৪১ সাল নাগাদ ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খাদ্যপণ্য রপ্তানির লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করেছে এবং বর্তমানে বাংলাদেশের প্রক্রিয়াজাত খাদ্য রপ্তানির প্রবৃদ্ধির হার ২৬% বলেও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

মেলায় অংশগ্রহণ বাংলাদেশের খাদ্যপণ্য রপ্তানির বাজার ও রপ্তানি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে অত্যন্ত সহায়ক হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে আশাবাদ ব্যক্ত করেন দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল এস বদিরুজ্জামান। বাংলাদেশের কৃষি শিল্পের বিকাশ, উৎকর্ষ এবং খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের বিষয়ে আলোকপাত করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনের সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কমার্শিয়াল কাউন্সিলর ড. এ.কে. এম রফিক আহাম্মেদ। এতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রমোশন ব্যুরো’র ডেপুটি ডাইরেক্টর মোহাম্মদ জাকির হোসেন, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সেল এর সিনিয়র সভাপতি মোহাম্মদ আইয়ুব আলী বাবুল, সাংবাদিক মাহাবুব হাসান হৃদয়, সাইফুল ইসলাম তালুকদার প্রমুখ। এসময় ভাইস কনসাল মেহেদুল ইসলাম, প্রথম সচিব(শ্রম) একেএম মিজানুর রহমানসহ মেলায় অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশি কোম্পানি সমূহের প্রতিনিধিগণ, স্থানীয় বাংলাদেশি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলিক্ট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ ও কনস্যুলেট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।