দুই সংবাদকর্মী পেটানোর ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত: ডিএমপি

0
137

3ঢাকা: রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ডাকা হরতালের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে বেসরকারি টিভি চ্যানেল এটিএন নিউজের দুই সংবাদকর্মী পেটানোর ঘটনাকে পুলিশের পক্ষ থেকে ‘অপ্রীতিকর ও অনাকাঙ্ক্ষিত’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) প্রকাশিত নিউজ পোর্টালে ‘শাহবাগ থানার সামনে অনাকাঙ্খিত ঘটনায় পুলিশ কর্তৃক গৃহীত ব্যবস্থা’ শিরোনামের সংবাদে এ কথা উল্লেখ করা হয়।

ওই সংবাদ বলা হয়, ‘গত ২৬ জানুয়ারি শাহবাগ থানা গেটে এটিএন নিউজের ক্যামেরাম্যান আব্দুল আলিম ও রিপোর্টার ইশান দিদার এর সাথে শাহবাগ থানার সামনের রাস্তায় পুলিশের কতিপয় সদস্যের এক অপ্রীতিকর ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে শাহবাগ থানায় কর্মরত এএসআই এরশাদের সম্পৃক্ততা সনাক্ত করায় তাকে চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।’

সংবাদে আরো বলা হয়, উক্ত ঘটনার দায় দায়িত্ব নিরূপনের জন্য সংগৃহীত সিসিটিভি, ভিডিও ফুটেজ পর্যবেক্ষণ ও সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে দোষীদের সনাক্ত করনের চেষ্টা অব্যাহত আছে। এই অনাকাঙ্খিত ঘটনার সাথে যারা জড়িত অনুসন্ধানপূর্বক দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ পুলিশ একটি পেশাদার বাহিনী। কোন ব্যক্তির অপেশাদার অসদাচরণের দায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ নিকট অতীতে প্রশ্রয় দেয়নি এবং ভবিষ্যতেও দেবে না। আমরা সাংবাদিকতা অন্যান্য পেশার প্রতি সমানভাবে সম্মান প্রদর্শন করি।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পেশার মধ্যে বিবাদ সৃষ্টি করা অনাকাঙ্ক্ষিত। দুই পেশার মধ্যে কেউ অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে বিবাদ সৃষ্টির অপচেষ্টা করতে পারে। এ বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সকলকে সজাগ থাকার আহবান করছে’বলেও সংবাদে উল্লেখ করা হয়।

প্রসঙ্গত, রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবিতে হরতাল চলাকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় পিকেটারদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহে থাকা এটিএন নিউজের প্রতিবেদক এহসান বিন দিদার ও ক্যামেরা পারসন আব্দুল আলীমকে দুপুরের দিকে শাহবাগ থানার সামনে মারধর করে পুলিশ।

পরে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সাংবাদিক পেটানোর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শাহবাগ থানার এএসআই এরশাদ মণ্ডলকে বরখাস্ত করা হয়।

LEAVE A REPLY