দুই একদিনেই পাচ্ছি রিজার্ভের ১১৯ কোটি টাকা : অর্থমন্ত্রী

0
150

152311orthomontri_3_kalerkantho_picঢাকা: বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি হওয়া রিজার্ভের প্রায় ১১৯ কোটি টাকা দুই একদিনের মধ্যেই হাতে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সচিবালয়ে আজ মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ তথ্য জানান। বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি যাওয়া রিজার্ভের উদ্ধার হওয়া ৪৬ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার এবং ৪৮ কোটি ৮২ লাখ ৮০ হাজার পেসো (মোট ১১৯ কোটি টাকা) বাংলাদেশকে ফিরিয়ে দিতে আদেশ জারি করেছে ফিলিপাইনের রিজিওনাল ট্রায়াল কোর্ট। সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়টি জানানো হয়।

আদালতের রায়ে ফেরত পাওয়া টাকা বাংলাদেশে আসতে কতদিন লাগবে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, এটা বোধ হয় আইদার আমরা পেয়ে গেছি, আজকে কালকের মধ্যেই পাচ্ছি। আমরা মনে হয় আমরা পেয়েই গেছি। টাকা ফেতর পাওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সোমবারই তাকে জানানো হয়েছে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী। বাকি টাকার কি পরিমাণ ব্যাংকিং চ্যানেলে আছে- একজন সাংবাদিক জানতে চাইলে আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, না না, সেটা তো আমরা বলতে পারব না।

হুইচ মানি দে হ্যাভ কালেকটেড, ইটস ইজিলি অ্যাভেইলঅ্যাবেল, বাকিটা কেইসের ব্যাপার-ট্যাপার, সুতরাং ওটা বলা মুশকিল। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (নিউইয়র্ক ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার (প্রায় ৮০০ কোটি টাকা) চুরির ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে দুই কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কায় আর বাকি ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনে। শ্রীলঙ্কা থেকে দুই কোটি ডলার ফেরত পাওয়া গেছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এরপর গত ১৫ মার্চ সরকার এ ঘটনা তদন্তে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাস উদ্দিনকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে। ২০ মার্চ অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর ২২ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করে তদন্ত কমিটি। এরপর গত ৩০ মে ফরাস উদ্দিন আহমেদ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে তদন্ত চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেন। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন আগামী বৃহস্পতিবার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে।

LEAVE A REPLY