ঢাকা আসছেন মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীর ইমাম

0
90

sa_43505_1490916071ঢাকা: প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আসছেন মক্কার পবিত্র মসজিদুল হারামের ইমাম ড. শায়খ আবদুর রহমান আস সুদাইসি ও মদিনা শরিফের মসজিদে নববীর জ্যেষ্ঠ ইমাম শায়খ ড. আলী বিন আবদুর রহমান আল হুযাইফি। তারা ৬ এপ্রিল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আলেম-উলামা মহাসম্মেলনে অংশ নেবেন। ধর্ম মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

জানতে চাইলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল বৃহস্পতিবার যুগান্তরকে বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সারা দেশের আলেম-উলামাকে আমরা দাওয়াত দিয়েছি। পবিত্র কাবা শরিফ ও মসজিদুন নববীর ইমামসহ ছয় সৌদি মেহমান সেখানে তাশরিফ আনবেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যাবতীয় প্রস্তুতি চূড়ান্ত পর্যায়ে। মহাসম্মেলনে ৬-৭ লাখ লোক উপস্থিত হবে বলে আমরা আশা করছি।

সূত্র জানায়, ঢাকায় আসার ব্যাপারে প্রাথমিক সম্মতি জানিয়েছেন মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব দুই ইমাম। ইতিমধ্যে বিষয়টির অনুমোদনও দিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশাহ। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলেম-উলামা মহাসম্মেলনে বিশেষ মেহমান হিসেবে তারা অংশ নেবেন।

বৃহস্পতিবার ধর্ম মন্ত্রণালয়ে ধর্ম সচিব আবদুল জলিলের সভাপতিত্বে এ সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে জানানো হয়, ৪ এপ্রিল দুই ইমামসহ ছয় সদস্যের সৌদি প্রতিনিধি দল ঢাকায় আসবে। এ মেহমানদের সম্মান ও নিজেদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ৬ এপ্রিল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আলেম-উলামা মহাসম্মেলন করবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত দুই লাখ ৬০ হাজার মসজিদের ইমাম, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্রের ৬৫ হাজার শিক্ষক-কর্মচারী, ৯০ হাজার প্রশিক্ষিত ইমাম, ৬১ হাজার ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্যদের ঢাকায় আসতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি কয়েক লাখ আলেম-উলামা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক, সরকারি কর্মকর্তা ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মহাসমাবেশে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

সূত্র জানায়, ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এক বৈঠকে মক্কা ও মদিনার দুই ইমামের ঢাকায় আনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়। ওই বৈঠকে আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. আবদুল্লাহকে প্রধান করে কমিটি গঠন করে দেন প্রধানমন্ত্রী। সদস্য করা হয় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের কয়েকজন সদস্যকে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঢাকাস্থ সৌদি দূতাবাসের সঙ্গে কথা বলে দুই ইমামকে ঢাকায় আনার প্রক্রিয়া ও প্রয়োজনীয় আলোচনা শেষে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ৭ মার্চ আমন্ত্রণপত্র নিয়ে সৌদি আরব যান। ওই প্রতিনিধি দলে ছিলেন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. আবদুল্লাহ, ইসলামিক ফাউন্ডেশন মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল, সংসদ সদস্য আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভী ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন বোর্ড অব গভর্নরসের সদস্য মিছবাহুর রহমান চৌধুরী।