ডেস্কটপ হিসেবেও ব্যবহার করতে পারবেন যে স্মার্টফোন

0
163

1341161479481329149এইচপি এলিট এক্স৩ স্মার্টফোনটি উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমচালিত। এ ছাড়া আপনি চাইলে সহজেই এর সঙ্গে সংযুক্ত করতে পারবেন একটি মনিটরের, যা আপনাকে ডেস্কটপ কম্পিউটার চালানোরও সুবিধা দেবে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ।

আপনি যদি একটি ডিভাইস থেকেই স্মার্টফোন ও ডেস্কটপ চালাতে চান এইচপি এলিট এক্স৩ স্মার্টফোনটি কিনতে পারেন। বিশ্বখ্যাত কম্পিউটার সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিউলেট প্যাকার্ড উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমচালিত স্মার্টফোনটি বাজারে এনেছে। এতে মাউস, কিবোর্ড সবই যোগ করা যাবে। এটা থাকা মানেই পকেটে একটি উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটার থাকা।


বেশ কাজের স্মার্টফোন এইচপি এলিট এক্স৩। ছয় ইঞ্চি অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যার রেজ্যুলেশন হলো ২৫৬০ x ১৪৪০ পিক্সেল। এ ছাড়া এতে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল পেছনের কামেরা, ২.১৫ গিগাহার্জ কোয়াড কোর স্ন্যাপড্রাগন ৮২০ প্রসেসর, ৬৪ জিবি স্টোরেজ, ৪ জিবি র‌্যাম। মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট ব্যবহার করে এতে ২ টেরাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজ বাড়ানো সম্ভব। এ ছাড়া ইউএসবি টাইপ-সি কানেক্টর ব্যবহার করায় দ্রুতগতিতে তথ্য আদান-প্রদান করা যাবে। স্মার্টফোনটির ব্যাটারি হলো ৪১৫০ এমএএইচ। এ ছাড়া এতে থাকছে উইন্ডোজ ১০ মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম।

মাইক্রোসফটের নতুন প্রজন্মের অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ ১০ এ স্মার্টফোন কাম ল্যাপটপটির কাজ করা সুবিধাজনক করে তুলেছে। এতে প্রয়োজনের সময় পকেটে করে যেমন ঘোরা যাবে তেমন প্রয়োজনের সময় টেবিলে নিয়ে কাজ করা যাবে স্মার্টফোনটি নিয়ে।

এইচপির এ স্মার্টফোন আপনি যদি পূর্ণ প্যাকেজ কেনেন তাহলে এর সঙ্গেই পাবেন মনিটর। এর পূর্ণ প্যাকেজের মধ্যে রয়েছে ১২.৫ ইঞ্চি ল্যাপটপ মনিটর ও কিবোর্ড। এ দুটি ব্যবহার করা যাবে স্মার্টফোনটির হার্ডওয়্যারের সঙ্গে সংযুক্ত করে।

এ ফোনটিতে রয়েছে অনেকগুলো পোর্ট। এ দিয়ে দিব্যি সব কাজ চলবে। আছে ইউএসবি ৩.০ পোর্ট। আছে দ্রুততম ইউএসবি-সি পোর্ট। আরো আছে ইথারনেট পোর্ট এবং একটি ডিসপ্লে পোর্ট।

শুধু বড় ডিসপ্লে ও কিবোর্ড নয়, এতে বাড়তি মাউস ও অন্যান্য যন্ত্রাংশ সংযুক্ত করা যাবে। ফলে স্মার্টফোন হলেও বাস্তবে এ যন্ত্রটি একটি ল্যাপটপের শূন্যস্থানপূরণ করবে।

উইন্ডোজ ১০ ইকোসিস্টেমে একটি ফিচার রয়েছে যার নাম ‘কন্টিনাম’। এটা উইন্ডোজ ১০ মোবাইল ওএস’কে কম্পিউটারে ওএস এর রূপ দেবে। কন্টিনাম মূলত পরিপূর্ণ উইন্ডোজ ১০ এর মতো। এটি মোবাইলের অপারেটিং সিস্টেমে পুরোপুরি কম্পিউটারের উইন্ডোজের মতো সব অ্যাপ দেখাবে। মাইক্রোসফট অফিস এবং এজসহ পরিপূর্ণ অ্যাপের দেখা মিলবে এতে।

এলিট এক্স৩’কে ল্যাপডকে যুক্ত করা যাবে। ল্যাপডকের মাধ্যমে স্মার্টফোনটির ডিসপ্লে সাড়ে ১২.৫ ইঞ্চি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। বিশ্লেষকরা বলছেন, এর কাজের গতি বা পারফর্মেন্স ডেস্কটপ কম্পিউটারের মতো না হলেও তা খুব একটা খারাপ নয়। বিশেষ করে যারা খুব বেশি দৌড়াদৌড়ি করেন তারা এটি ব্যবহারে ডেস্কটপ কম্পিউটার সঙ্গে বহন করার অনুভূতি পাবেন। স্মার্টফোনটির দাম শুরু ৬৯৯ ডলার থেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here