ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’

0
28

ঢাকা: ঈদ উপলক্ষে বাড়ি ফেরা নিয়ে বাসে বাড়তি ভাড়ার (বকশিস) নামে কোথাও নীরব চাঁদাবাজি চলছে না বলে দাবি করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

বুধবার (১৩ জুন) দুপুরে রাজধানীর সায়েদাবাদে বাস কাউন্টার পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘প্রতিটি বাস কাউন্টারে ভাড়ার তালিকা রয়েছে। নির্দিষ্ট হারের চেয়ে বেশি ভাড়া যাতে কেউ নিতে না পারে সে বিষয়ে নজরদারি রয়েছে।’

‘আমি নিজে প্রতিটি বাস কাউন্টার ঘুরে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছেন, কাউন্টারে বেশি ভাড়া নিচ্ছে না। ঈদ বকশিসের নামে কোথাও নীরব চাঁদাবাজি নেই।’

‘তবে যদি এমন কোথাও ঘটেও থাকে তাহলে চাঁদাবাজরা যেই হোক-তাদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতিতে রয়েছে’ বলে জানান আছাদুজ্জামান মিয়া।

কমিশনার চাঁদাবাজদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘ঢাকা মহানগরীতে যদি আমরা থাকি তবে কোনো চাঁদাবাজ থাকতে পারবে না। চাঁদাবাজরা যতই প্রভাবশালী হোক না কেন কোনো ছাড় দেয়া হবে না। তাদেরকে আইনের আওতায় এনে বিচারের সম্মুখীন করা হবে। এই বিষয়ে পুলিশের অবস্থান জিরো টলারেন্স।’

তিনি বলেন, ‘ঈদের ছুটিতে প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে যে পাহারা দিতে পারবো, এটি সম্ভব নয়। তবে আমরা সবাইকে অনুরোধ করে বলেছি নিজেদের বাসস্থান, প্রতিষ্ঠানে কিছুটা সিকিউরিটির ব্যবস্থা রেখে যাবেন।’

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রতিটি ঈদের ন্যায় এ বছরও সর্বশক্তি প্রয়োগ করে জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তৎপর রয়েছে পুলিশ।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। ইতোমধ্যে রাজধানীর শত শত মাদক স্পট ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছি। মাদকের সঙ্গে যারাই জড়িত থাকবে, তাদের কোনো রকম ছাড় দেওয়া হবে না।’

তিনি বলেন, ‘ঈদে ঘরমুখো মানুষেরা যাতে নির্বিঘ্নে বাড়ি যেতে পারেন, সেজন্য রাজধানীর সব প্রবেশ এবং বাহির পথগুলো যানজট মুক্ত রাখতে পুলিশ কাজ করছে। বিভিন্ন বাস কাউন্টার, লঞ্চ ঘাট ও রেলওয়ে স্টেশনে যাতে কোনো যাত্রী হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার না হন, সেজন্য পর্যাপ্ত পুলিশের পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here